শেষ বলে চার মেরে মোহামেডানকে নাটকীয় জয় এনে দিলেন শফিউল

75
photo: Collected

শেষ ওভারে মোহামেডানের দরকার ছিল ৩ রান। কিন্তু হাতে ছিল মাত্র ১ উইকেট। এর মধ্যে আরাফাত সানি প্রথম পাঁচ বলে দিলেন মাত্র ১

    রান। শেষ বলে মোহামেডানের ঝুুঁকি নিতেই হতো। হয় উইকেট যাবে, না হয় জয়। এমন পরিস্থিতিতে স্নায়ুচাপটা ধরে রাখলেন শফিউল ইসলাম। দারুণ এক বাউন্ডারিতে মোহামেডানকে জয়ের উচ্ছ্বাসে ভাসালেন লোয়ার অর্ডার এই ব্যাটসম্যান।

    মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে নাটকীয় এক জয়ই পেয়েছে মোহামেডান। সোহাগ গাজীর দুর্দান্ত ব্যাটিং আর ইনিংসের শেষ বলে শফিউলের বাউন্ডারিতে প্রাইম দোলেশ্বরকে ১ উইকেটে হারিয়েছে সাদা-কালোরা।

    টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৬৫ রানের মধ্যে ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলে প্রাইম দোলেশ্বর। সেখান থেকে দলকে উদ্ধার করেন মার্শাল আইয়ুব আর তাইবুর রহমান। পঞ্চম উইকেটে তারা গড়েন ১১৭ রানের বড় জুটি।

    মার্শাল আইয়ুব ৬৮ রানে ফিরলেও শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন তাইবুর। ৮৩ বলে ৬ বাউন্ডারি আর ১ ছক্কায় হার না মানা ৭২ রান করেন তিনি। দোলেশ্বর তুলে ৮ উইকেটে ২৪৮ রান।

    মোহামেডানের পক্ষে ৩টি করে উইকেট নেন শফিউল ইসলাম আর আলাউদ্দিন বাবু।

    জবাবে ১২৫ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে নিশ্চিত হার দেখছিল মোহামেডান। সেখান থেকে দলকে টেনে তুলেন সোহাগ গাজী। ৫১ বলে ৩ চার আর ৬ ছক্কায় ৭০ রানের ঝড়ো এক ইনিংস খেলে তিনি যখন ফিরেছেন, ১০ বলে আর ৪ রান দরকার ছিল মোহামেডানের। তবে হাতে ছিল মাত্র ১ উইকেট। শফিউল শেষটায় আঁচড় দিতে না পারলে তীরে এসে তরী ডুবতো সাদা-কালোদের।

    দোলেশ্বরের পক্ষে ১০ ওভার হাত ঘুরিয়ে ৫৫ রান খরচায় ৪টি উইকেট নেন অলরাউন্ডার ফরহাদ রেজা।