ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন জার্মান ফুটবলার

জার্মানি জাতীয় দলে সুযোগ না হলেও দেশটির হয়ে অলিম্পিকসে পদক জিতেছেন তিনি। রবার্ট বাউয়ার নামের এই ডিফেন্ডার ক্যারিয়ারের সিংহভাগই কাটান জন্মভূমি জার্মানির বিভিন্ন ক্লাবে।

ভেরদার ব্রেমেন, এফসি নুরেনবার্গের মতো ঐতিহ্যবাহী দলগুলোর হয়ে মাঠ মাতানো এই ফুটবলার কখনো সেভাবে পরিচিত পাননি। এবার ভিন্ন এক কারণে খবরের শিরোনাম হলেন। ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার কথা জানালেন তিনি।

বিশ্ব ফুটবলে সৌদি আরবের উত্থান চলছে। ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডো, করিম বেনজেমা, সাদিও মানেদের মতো তারকাদের ভিড়িয়ে প্রো লিগ জমিয়ে তুলেছে সৌদিয়ান ক্লাবগুলো। ফুটবলের সৌদিমুখী এ জোয়ারের অংশ হয়েছেন রবার্ট বাউয়ারও।

গত জুলাইয়ে বেলজিয়ান ক্লাব সিন্ট-ট্রুইডেন থেকে এই জার্মান ডিফেন্ডারকে উড়িয়ে আনে প্রো লিগের দল আল তাঈ। মুসলিম অধ্যুষিত সৌদি আরবে এসেই ইসলাম গ্রহণ করার কথা জানালেন বাউয়ার।

ধর্ম পরিবর্তনের খবরটি নিজেই জানিয়েছেন রবার্ট বাউয়ার। ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে পরপর দু’টি ছবি আপলোড করেন তিনি।

প্রথমটিতে পবিত্র কুরআনের সুরা ফাতিহার ৬ নম্বর আয়াতের ছবি পোস্ট করেন বাউয়ার। আয়াতটির অর্থ, ‘হে আল্লাহ আমাদের সঠিক পথ দেখান।’ বাউয়ার মুসলমান হয়েছে বুঝতে পেরে অনেকেই তাকে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠান। ছয় ঘণ্টার ব্যবধানে শ্বশুর এবং পুত্রের সঙ্গে নামাজ পড়ার একটি ছবি আপলোড করেন বাউয়ার।

সেখানে তিনি লিখেন, ‘এই বার্তা তাদের জন্য, যারা আজ আমাকে শুভ কামনা জানালেন। অনেক বছর হলো আমি আমার স্ত্রী এবং তার পরিবারের অনুপ্রেরণায় মুসলমান হয়েছি। আমার এই যাত্রায় যারা সাহায্য করেছেন এবং সাহস যুগিয়েছেন, তাদের সকলকে ধন্যবাদ জানাই।’

নামাজরত ছবির ওপর বাউয়ার লিখেছেন, ‘এটা আমি, আমার শ্বশুর নাসির এবং আমার পুত্র ঈসা।’ ধারণা করা হচ্ছে, মুসলিম কোনো নারীকে বিয়ে করেই ধর্মান্তরিত হয়েছিলেন বাউয়ার। মুসলমান হওয়ার পর জার্মান এই ফুটবলারের নতুন নাম কী রাখা হয়েছে, তা জানা যায়নি।

জার্মান ক্লাব ইনগালোস্টাডের হয়ে ফুটবলের যাত্রা শুরু হয় রবার্ট বাউয়ারের। এরপর খেলেছেন নুরেমবার্গ এবং ভেরদার ব্রেমেনের মত শীর্ষ পর্যায়ের ক্লাবে। ২০১৬ সালের রিও অলিম্পিকে জার্মান দলে জায়গা পেয়েছিলেন। নেইমারের ব্রাজিলের কাছে হেরে সেবার রৌপ্য পদক পেয়েছিল জার্মানি।

এই ডিফেন্ডার ক্যারিয়ারের সিংহভাগই কাটান নিজ জন্মভূমির ভেরদার ব্রেমেন, এফসি নুরেনবার্গের মতো ঐতিহ্যবাহী দলগুলোর মতো ক্লাবে।