মাশরাফি-সাইফকে ছাপিয়ে ইয়াসির আলীর দুর্দান্ত সেঞ্চুরি

468

গত বিপিএল থেকে দারুণ সময় যাচ্ছে ইয়াসির আলির। আজও ব্যাট হাতে খেললেন দারুণ ইনিংস। হাঁকালেন দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি। দলের বিপর্যয়ে দাঁড়িয়ে দলকে একাই টানলেন কিন্তু শেষ পর্যন্ত ব্রাদার্সকে জয়ের আলোয় ছোঁয়া এনে দিতে পারলেন না ইয়াসির আলি চৌধুরী।

তাই মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন ও মাশরাফি বিন মুর্তজার অলরাউন্ড পারফরম্যান্স কে ছাপিয়ে গেলেও হারতে হল ইয়াসির আলির ব্রাদার্সকে।

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে ব্রাদার্স ইউনিয়নকে ১৪ রানে হারিয়েছে আবাহনী লিমিটেড। বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা এই নিয়ে জিতল তিন ম্যাচের সবকটি।

মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে নাজমুল শান্ত ৪৪, মোসাদ্দেকের ৫৪ রান আর শেষ দিকে সাইফউদ্দিনের ৪৫ বলে অপরাজিত ৫৯ ও মাশরাফির মাত্র ১৫ বলে ১ ছক্কা ৩ চারে অপরাজিত ২৬ রানে আবাহনী ৫০ ওভারে ৬ উইকেটে ২৩৬ রান করে।

২৩৭ রানের জবাবে ব্যাট করতে নামা ব্রাদার্সকে শুরুতেই চেপে ধরে মাশরাফি-সাইফউদ্দিন। তারপর নতুন বলে রুবেল হোসেনের দুর্দান্ত স্পেলও চাপে ফেলে দেয় ব্রাদার্সকে। প্রথম স্পেলে রুবেলের বোলিং ফিগার ছিল ৫-৩-২-০!

মাত্র ৩২ রানে ৩ উইকেট হারানোর পর উইকেটে যান ইয়াসির। শুরু হয় লড়াই। স্রোতের প্রতিকূলে এগিয়ে নেন দলকে। উইকেট ধরে রাখার পাশাপাশি সুযোগ পেলেই বলতে পাঠিয়েছেন বাউন্ডারিতে।

তবে ইয়াসিরকে ভরসা দিতে পারেননি কোনো সতীর্থ। তার কাজ তাই হয়ে উঠেছে কঠিন। একটির পর একটি জুটিতে সম্ভাবনা উজ্জ্বল হতেই আবার হারাতে হয়েছে উইকেট।

শেষ দিকে রান-বলের টানাপোড়েন যখন বাড়ছে, আবারও মাশরাফি ও সাইফ করেছেন নিয়ন্ত্রিত বোলিং। ছোট রান আপে প্রথম স্পেলে লাইন-লেংথ ধরে রেখে বল করেছেন মাশরাফি। তাই শেষ পর্যন্ত ১৪ রানের জয় পায় মাশরাফির আবাহনী।

ইয়াসির আলির লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে নিজের আগের সর্বোচ্চ ছাড়িয়ে যান (বাংলাদেশ ‘এ’ দলের হয়ে ১০২)। আজ ৮ চার ও ২ ছক্কায় সেটিকে ছাড়িয়ে করেছেন ১১২ বলে ১০৬ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন এই তরুণ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

আবাহনী: ২৩৬/৬ (৫০)
(জহুরুল ১৪, জাভেদ ১, জাফর ৮, শান্ত ৪৪, মোসাদ্দেক ৫৪, সাব্বির ১৩, সাইফ ৫৯*, মাশরাফি ২৬*। মেহেদি ১০-০-৫৮-২, নাঈম জুনিয়র ৮-০-২৮-২)

ব্রাদার্স: ২২২/৮ (৫০)
মিজানুর ৭, জুনায়েদ ১৭, হামিদুল ০, চিরাগ ১৫, ইয়াসির ১০৬*, ফজলে রাব্বি ১৩, শরিফউল্লাহ ২১, শরিফ ১৭, নাঈম জুনিয়র ১০, মেহেদি ১*।
মাশরাফি ৮-০-৩৯-২, সাইফ ১০-১-৫৪-১ সাব্বির ৫-০-২১-২)

ম্যান অব দা ম্যাচ: মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন