জেনিংসের দুর্দান্ত সেঞ্চুরিতে শ্রীলঙ্কাকে ৪৬২ রানের টার্গেট দিল ইংল্যান্ড

6

অসাধারণ সেঞ্চুরিতে দলকে জয়ের মতো লিড এনে দিলেন কিটন জেনিংস। অপরাজিত ১৪৬ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেললেন জেনিংস। গল টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ৬ উইকেটে ৩২২ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করল ইংল্যান্ড। ১৩৯ রানের আগের লিড মিলিয়ে শেষ ইনিংসে শ্রীলঙ্কার সামনে লক্ষ্য ৪৬২।

বৃহস্পতিবার ম্যাচের তৃতীয় দিন লঙ্কানরা বিনা উইকেটে ১৫ রান নিয়ে শেষ করে।

ররি বার্নসের সঙ্গে জেনিংসের উদ্বোধনী জুটিই গড়ে দেয় বড় লিডের ভিত। ৬০ রানের জুটি শেষ হয় বার্নসের আত্মঘাতী রান আউটে।
এরপর মইন আলি ও জো রুট ফেরেন দ্রুত। ৭৪ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে খানিকটা বিপদে পড়েছিল ইংল্যান্ড। পঞ্চম উইকেট জেনিংস ও বেন স্টোকসের জুটিতে সেই ধাক্কা সামাল দেয় ইংলিশরা। দুজনে গড়েন ১০৭ রানের জুটি।

৪টি চার ও ৩ ছক্কায় স্টোকস করেন ৬২। এরপর ছিল কেবল দ্রুত রান তোলার পালা। জস বাটলার করেন ৩৫, প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান বেন ফোকস এবার ৩ ছক্কায় করেন ৩৭।

আরেকপ্রান্তে জেনিংস ছিলেন অটল। ২০১৬ সালে অভিষেক টেস্টে মুম্বাইয়ে ভারতের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করে শুরু হয়েছিল তার ক্যারিয়ার। ফিফটি করেছিলেন তৃতীয় টেস্টে। এরপর টানা ৯ ইনিংসে ছিল না আর কোনো ফিফটি। দল থেকে বাদ পড়ে আবার ফেরেন। ত্রয়োদশ টেস্টে এসে পেলেন দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। স্মরণীয় করে রাখলেন ২৮০ বলে অপরাজিত ১৪৬ রানের ইনিংসে।

রুট ও বাটলারের উইকেট নিয়ে ৪৩৩ উইকেটে ক্যারিয়ার শেষ করলেন হেরাথ। শেষবার বোলিং করে মাঠ ছাড়ার সময় সতীর্থরা তাকে রেখেছিল সবার সামনে।
শেষ বিকেলে শ্রীলঙ্কাকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় ইংলিশরা। ৭ ওভার নিরাপদে কাটিয়ে দেন দুই লঙ্কান ওপেনার। সামনে তাদের শেষ দুই দিনের কঠিন চ্যালেঞ্জ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: ৩৪২

শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংস: ২০৩

ইংল্যান্ড ২য় ইনিংস: ৯৩ ওভারে ৩২২/৬ (ডি.) (আগের দিন ৩৮/০)(বার্নস ২৩, জেনিংস ১৪৬* মইন ৩, রুট ৩, স্টোকস ৬২, বাটলার ৩৫, ফোকস ৩৭, কারান ০*; দিলরুয়ান ২/৯৪, লাকমল ০/৩০, হেরাথ ২/৫৯, দনাঞ্জয়া ১/৮৭, ধনাঞ্জয়া ০/৪১)।

শ্রীলঙ্কা ২য় ইনিংস: (লক্ষ্য ৪৬২) ৭ ওভারে ১৫/০ (করুনারত্নে ৭, কৌশল ৮; কারান ০/০, অ্যান্ডারসন ০/৪, মইন ০/৭, রশিদ ০/২, লিচ ০/২)