আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ের পর যা বললেন সরফরাজ

56

এবছর চারদিন আগে আয়ারল্যান্ড নিজেদের ইতিহাসের প্রথম টেস্ট খেলতে নেমেছিল। পিসিবির সাথে ভালো সম্পর্ক থাকায় প্রতিপক্ষ হিসেবে তারা এশিয়ার পরাশক্তি পাকিস্তানকে বেছে নেয়। লড়াইটা তো একপেশেই হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেই পাকিস্তানই কি না সহজেই জিততে পারলো? ম্যাচশেষে ফলটা ৫ উইকেটের জয় দেখালেও পাকিস্তানকে কিন্তু ভালোই ভয় পাইয়ে দিয়েছিল স্বাগতিক আইরিশরা। ডাবলিন টেস্ট শেষ হওয়ার পর দলটির অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদও স্বীকার করলেন, ১৪ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে চিন্তায় পড়ে গিয়েছিলেন তারা।

একটা সময় মনে হচ্ছিল, খুব সহজেই টেস্টটা জিতে যাবে পাকিস্তান। প্রথম ইনিংসে ৯ উইকেটে ৩১০ রান তুলে ইনিংস ঘোষণার পর আইরিশদের ১৩০ রানেই গুটিয়ে দিয়েছিল তারা। স্বাগতিকদের এরপর ফলোঅন করায় সরফরাজের দল। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে কেভিন ও’ব্রায়েনের বীরত্বে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় আইরিশরা, তুলে ৩৩৯ রান। ফলে পাকিস্তানের সামনে দাঁড়ায় ১৬০ রানের লক্ষ্য।

লক্ষ্যটা খুব বড় ছিল না। কিন্তু আয়ারল্যান্ডের বোলারদের নৈপুন্যে ১৪ রানের মধ্যেই ৩টি উইকেট হারিয়ে বসেছিল পাকিস্তান। চতুর্থ উইকেটে ইমাম-উল-হক (অপরাজিত ৭৪) আর বাবর আজম (৫৯) হাল না ধরলে বড় বিপদই হতে পারতো।

সরফরাজ স্বীকার করলেন, বেশ দুশ্চিন্তাতেই পড়ে গিয়েছিলেন তারা। দুই ব্যাটসম্যানের প্রশংসা করতেও ভুল করলেন না পাকিস্তানি অধিনায়ক, ‘যখন ১৪ রানে মধ্যে ৩টি উইকেট পড়ে যায়, আমরা বেশ দুশ্চিন্তাতেই পড়ে গিয়েছিলাম। তবে দলের তরুণ দুই ব্যাটসম্যান ইমাম-উল-হক আর বাবর আজম যেভাবে খেলেছে, আসলেই দারুণ। তারা তাদের সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়েছে, খেলেছে বেশ আত্মবিশ্বাস নিয়ে। তাদের এই খেলাটা দলের আত্মবিশ্বাসও বাড়িয়েছে। আগামী ম্যাচগুলোতে এটা আমাদের সাহায্য করবে।’

আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে এই টেস্টটি শেষ করে এখন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে কঠিন সিরিজের জন্য প্রস্তুত হতে হবে পাকিস্তানকে। আগামী ২৪ মে লর্ডসে শুরু হবে দুই দলের প্রথম টেস্টটি।