অমুসলিম হয়েও রিজওয়ানদের সঙ্গে রোজা রাখছেন ইংলিশ নারী কোচ

ধর্ম পালনে পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের আলাদা নজির আছে, আর মোহাম্মদ রিজওয়ান তাদের মধ্যে অন্যতম। মোহাম্মদ রিজওয়ানকে দেখে অজি সাবেক ক্রিকেটার ম্যাথু হেইডেনের কোরআনের প্রতি আগ্রহ জন্মানোর ঘটনাও আছে। আর এবার সেই মোহম্মদ রিজওয়ানদের দেখে তাদের দলের বিদেশি নারী কোচও তাদের সাথে রোজা রাখছেন।

চলছে পবিত্র মাহে রমজান, আর এরই মাঝে চলছে পাকিস্তান সুপার লিগ পিএসএল, তবে রমজান উপলক্ষে পিসিবি সবগুলো ম্যাচ রেখেছে ইফতার ও তারাবির পর।

এদিকে মোহাম্মদ রিজওয়ানের দল ফাইনাল নিশ্চিত করার দিনে রোজা রেখে আলোচনায় এসেছেন তাঁর দলের সহকারী স্পিন বোলিং কোচ ও সাবেক ইংলিশ নারী ক্রিকেটার আলেক্স হার্টলি।

পাকিস্তান সুপার লিগে প্রথম নারী কোচ হিসেবে মুলতান সুলতানসের কোচিং প্যানেলে যুক্ত হয়েই খবরের শিরোনাম হয়েছিলেন বিশ্বকাপজয়ী এই ইংলিশ ক্রিকেটার।

তবে সম্প্রতি পাকিস্তানে রমজানে রোজা রেখে আবারো আলোচনায় এসেছেন সাবেক এই বাঁহাতি স্পিনার। পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের সঙ্গে রোজা রেখে ইফতারও করেছেন হার্টলি।

বিবিসি ফাইভ লাইভ স্পোর্টসের সঙ্গে করা এক পডকাস্টে নিজের অন্যরকম এই অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন সাবেক ইংলিশ তারকা। ইংল্যান্ড নারী ক্রিকেট দলের অন্যতম সেরা পেসার কেইট ক্রসের সঙ্গে করা পডকাস্টে রোজা রাখার অভিজ্ঞতা সম্পর্কে হার্টলি জানান, আমি তাদের কেমন অনুভব হয় তা জানতেই মূলত রোজা রেখেছিলেন।

পডকাস্টে হার্টলি বলেন, ‘আমার দলের বাকিরা রোজা রাখছে, আমি ভাবছিলাম তারা খেলতে যাওয়ার আগে কীভাবে এটি রাখে, আমি তা আমি বুঝতে চাই। তাই আমি তাদের সঙ্গে রোজা রাখি । আমরা মাত্র আমাদের রোজা ভেঙেছি ,খেজুর-সালাদ-সামান্য চিকেন খেয়েছি। সবাই নিচে এখন প্রেয়ার (নামাজ) করছে।

হার্টলি রোজা রাখার আরো একাধিক বিষয়গুলোও ব্যাখ্যা দিয়েছেন। পডকাস্টে এই নারী ক্রিকেটার আরো জানান, ‘আমরা ভোর ৪টায় শেষ খেতে পারবো। তারপর আবার পরদিন সন্ধ্যা ৬:৪০ পর্যন্ত আমরা কিছুই খাবো না, রোজা রাখবো। আমি যতদিন এখানে আছি তাদের সঙ্গে রোজা রাখবো ঠিক করেছি। ফাস্টিং (রোজা) খানিকটা কঠিন, সারাদিন না খেয়ে থাকা। তবে আমি যখন সন্ধ্যায় সবার সঙ্গে খেতে বসি আমার অনেক স্বাচ্ছন্দ্যবোধ হয় এবং শরীরে শক্তি আসে।’

সাবেক ইংলিশ নারী ক্রিকেটার রোজা রাখায় ভক্ত থেকে ধরে ক্রীড়া বিশ্লেষক সকলেই তাঁকে প্রশংসায় ভাসাচ্ছেন।