এক ইনিংসে ৫ ইনজুরি; আম্পায়ারের কনকাশন আম্পায়ার, সৌম্যর কনকাশন তানজিদ

তিন ম্যাচ ওয়ানডের সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি স্বাগতিক বাংলাদেশ। চট্টগ্রামে আগের দুই ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছিল দিবা-রাত্রির সূচিতে। তৃতীয় ম্যাচ চলছে দিনের সূচিতে। টস হেরে শুরুতে ফিল্ডিংয়ে নেমে দারুণ ছন্দে ছিলেন টাইগার বোলাররা। লঙ্কানদের টপঅর্ডার গুঁড়িয়ে দেন তাসকিন-মুস্তাফিজরা। যদিও শেষদিকে এসে বেশ বিপাকেই পড়ল টিম টাইগার্স। চট্টগ্রামে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ইনজুরির মড়ক লেগেছে যেন টাইগার শিবিরে।

এদিন স্বাগতিক চার ক্রিকেটারকে যেতে হয়েছে মাঠের বাইরে। শুরুটা হয়েছিল ব্যাটার এনামুল হক বিজয়কে দিয়ে। কাভারে ফিল্ডিং করার সময় পায়ে ব্যথা পান বিজয়! পরে মাঠের বাইরে গিয়ে সেবা শুশ্রূষা নিয়ে আবারও ফিরে আসেন ফিল্ডিংয়ে।

এরপর ইনিংসে আরও তিন তিনবার বিপর্যয়। স্ট্রেচারে চড়ে মাঠ ছাড়তে হয় মুস্তাফিজ ও জাকের আলি অনিককে। বোলিংয়ে এসে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে বসে পড়তে দেখা যায় পেসার মুস্তাফিজুর রহমানকে। এরপর মাঠ ছাড়লেন স্ট্রেচারে করে। সবশেষ কী অবস্থা সেটিও জানা যায়নি।

ইনিংসের ৪৮তম ওভারে ম্যাচের ৪৮তম ওভারে নিজের স্পেলের শেষ ওভার করতে আসেন ফিজ। একটা বল করেছিলেন বটে। সেটা ছিল ওয়াইড। পরের বল করতে এসে রান আপের মধ্যেই আটকে যেতে হয়। পরে আবার চেষ্টা করেও আর পারেননি। জাকের আলী ও এনামুল হকের কাঁধে ভর দিয়ে স্ট্রেচারে ওঠেন তিনি। সেভাবেই মাঠ ছাড়লেন এই পেসার।

এরপর বাউন্ডারি লাইনে চার বাঁচাতে গিয়ে পায়ে চোট পান সৌম্য সরকার। তৎক্ষনাৎ এই অলরাউন্ডারও যান মাঠের বাইরে। ব্যাটিংয়েও আর নামতে পারেননি সৌম্য, তার পরিবর্তে কনকাশন নামেন তানজিদ তামিম।

ইনিংসের ৫০তম ওভারে এসে আবারও বাধে বিপত্তি। বদলি হিসেবে ফিল্ডার নামা জাকের আলি অনিকের সঙ্গে ক্যাচ ধরতে গিয়ে সংঘর্ষ হয় বিজয়ের। জাকের আঘাত পান বুকে, এরপর তাকেও মাঠ ছাড়তে হয় স্ট্রেচারে করে।

চট্টগ্রামে প্রচণ্ড গরমের মাঝেই যেন ভোগান্তি বেড়েছে বাংলাদেশ শিবিরে। এই মুহূর্তে চট্টগ্রামের তাপমাত্রা ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গরমের সঙ্গে পাল্লা দিতে না পেরে বেশ ভুগতে হয়েছে বাংলাদেশকে।
এদিকে, দ্বিতীয় ইনিংসে মাঠে দেখা যায়নি অনফিল্ড আম্পায়ার রিচার্ড কেটেলবোরোকেও। প্রথম ইনিংসে একটু অস্বস্তিতে ছিলেন। জানা গেছে, অতিরিক্ত গরমে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন তিনি। অনফিল্ড আম্পায়ার হিসেবে শরফুদ্দৌলার সঙ্গে এসেছেন রিজার্ভ আম্পায়ার তানভীর আহমেদ।