আফগানদের হারাতে উইন্ডিজরা সময় নিলো ৩৮ বল

একমাত্র টেস্টে আফগানদের তৃতীয় দিনের শুরুতেই সহজেই হারালো উইন্ডিজ। ৯ উইকেটে হারিয়ে সহজ জয় পায় ক্যারিবিয়ানরা।

উইন্ডিজদের প্রথম ইনিংসে ৯০ রানের লিডের জবাবে দ্বিতীয় ইনিংসেও ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে আফগানরা। দ্বিতীয় দিন শেষে আফগানরা সংগ্রহ করে ৭ উইকেটে ১০৭ রান। তৃতীয় দিনে আর ১৩ রান যোগ করতেই অলআউট হয় আফগানরা।

৩১ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে ক্যাম্পবেলের ১৬ বলে অপরাজিত ১৯ রানে ৬.২ ওভারেই জয় তুলে নেয় উইন্ডিজরা।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো করেন আফগান ওপেনার জাভেদ আহমাদী ও ইবরাহিম জাদরান। তাদের ৫৩ রানের জুটি ভাঙলে ৬ রানের ব্যবধানে আরো ৩ উইকেট হারায় আফগানরা। কর্নওয়েলের ঘূর্নিতে স্কোর দাড়ায় ৫৩/০ থেকে ৫৯/৪।

একদিক আগলে রেখে ফিফটি তুলে নেন জাভেদ আহমাদী। তবে শেষ বিকেলে রস্টর চেজের দারুণ বোলিংয়ে আবারো ৩ উইকেট হারায় আফগানরা। দ্বিতীয় দিন শেষে তাদের লিড ১৯ রানের।

এর আগে ‘ম্যান মাউন্টেন’ খ্যাত রাহকীম কর্নওয়েলের দুর্দান্ত বোলিংয়ে একমাত্র টেস্টে আফগানদের প্রথম ইনিংসে ১৮৭ রানে অলআউট করার পর নিজেদের প্রথম ইনিংসে লিড নিয়েছে উইন্ডিজরা। ব্রুকসের শতকে ভর করে ৯০ রানের লিড নিয়ে তারা গুটিয়ে যায় ২৭৭ রানে।

আফগানিস্তানের হয়ে প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে নিজের প্রথম টেস্টে ৫ উইকেট নেওয়ার রেকর্ড গড়েন আমির হামজা।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ
আফগানিস্তান (১ম ইনিংস) ১৮৭/১০( জাভেদ আহমাদী ৩৯, আমির হামজা ৩৪)
কর্ণওয়েল ৭/৭৫।

উইন্ডিজ (১ম ইনিংস) ২৭৭/১০(ব্রুকস ১১১, জন ক্যাম্পবেল ৫৫)
আমির হামজা ৫/৭৪, রশিদ খান ৩/১১৪।

আফগানিস্তান (২য় ইনিংস) ১২০/১০(জাভেদ আহমাদি ৬২, ইবরাহিম জাদরান ২৩)
রস্টন চেজ ৩/১০, হোল্ডার ৩/২০, কর্নওয়েল ৩/৪১।

উইন্ডিজ ৩৩/১ (লক্ষ্য ৩১)
ক্যাম্পবেল ১৯*।