লিটন-মাহমুদউল্লাহ’দের চোটের সর্বশেষ অবস্থা জানালেন বিসিবি চিকিৎসক

ভারতের বিপক্ষে দুই টেস্টে হারটা ছিল লজ্জাজনক। সেই সাথে দ্বিতীয় ম্যাচে ইনজুরিতে পড়েন তিন ক্রিকেটার। যেখানে একজনও আর মাঠে নামতে পারে নি। আর তাই ক্রিকেটারদের চোটের সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে গণমাধ্যমের মুখোমুখি বিসিবির প্রধান চিকিৎসক।

ইন্দোর টেস্টে বদলি হিসেবে নেমে চেতেশ্বর পুজারার ক্যাচ ধরেই আঙুলে চোট পান অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা সাইফ হাসান। এরপর ইডেন গার্ডেন্সে ইশান্ত, শামির বাউন্সারে লিটন দাস, নাইম হাসানকে তো যেতে হয় হাসপাতালেও। সেই সাথে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং করতে গিয়ে হ্যামস্ট্রিংয়ের ইনজুরিতে পরেন মাহমুদউল্লাহ।

আজ (২৬ নভেম্বর) সাংবাদিকদের বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী। তিনি বলেন; “মাহমুদউল্লাহর ইনজুরিটা হচ্ছে গ্রেড ওয়ান হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি। সে গতকাল স্ক্যান করিয়েছে আমরা এখনও রিপোর্ট হাতে পাইনি। এখানে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে খুব অল্প মাত্রার হ্যামস্ট্রিং হলেও আমরা ৭ দিনের বিশ্রাম বেঁধে দিই। রেস্ট নেয়ার জন্য রিহ্যাব করার জন্য। ফিট না হয়ে খেলায় ফিরলে আবার ইনজুরিতে পড়ার সম্ভাবনা থাকে।”

মাহমুদউল্লাহকে নিয়ে তিনি আরও বলেন; “একই ইনজুরি ওই জায়গাতে হলে সারতে সময় নেয়। আমাদের প্রধান কাজ হচ্ছে ওর দ্বিতীয় ইনজুরিটা আটকানো। কারণ একই জায়গায় দ্বিতীয়বার চোট পেলে ফিরতে দিগুন সময় লাগতে পারে। এতে এক মাসের মতো সময় লেগে যায়। আর তৃতীয় বার লাগলে খেলোয়াড়ের ওই মৌসুম মিস করার একটা সম্ভাবনা থাকে। এক্ষেত্রে আমাদের প্রথম এবং প্রধান কাজ হচ্ছে ইনজুরিটা যেন দ্বিতীয়বার না হয় সেটার ব্যবস্থা করা।”

এরপর লিটন-নাইমের সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে দেবাশীষ চৌধুরী বলেন; “প্রাথমিকভাবে ওরা মাথায় চোট পাওয়ার পর সেখানেই (কোলকাতায়) দেখেছে। পরের সেখানকার স্থানীয় হাসপাতালে স্ক্যান করানো হয় দুজনকে। স্ক্যানের রিপোর্টে কোন ব্লিডিং বা খারাপ কিছু পাওয়া যায়নি। ধরে নিচ্ছি ওদের কনকাশনটা তেমন মারাত্মক নয়। কিন্তু নিয়ম অনুযায়ী প্রথম দুই দিন ওদের সম্পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে হবে।”

Share this post

PinIt
scroll to top