অনুশীলনের জন্যে ৬০ টি গোলাপি বল পাবেন মুমিনুল-কোহলি’রা

কলকাতার ইডেন গার্ডেনসে ২২ নভেম্বর ঐতিহাসিক ম্যাচ খেলতে নামবে বাংলাদেশ-ভারত৷ দুই দলই প্রথমবারের মতো খেলতে নামবে ফ্লাডলাইটের আলোর নিচে। প্রথমবারের মতো খেলতে নামবে গোলাপি বলে দিবারাত্রির টেস্ট।

এসজি কোম্পানির বল দিয়ে ইডেনের ম্যাচ খেলতে হবে মুমিনুল-কোহলিদের। এসজি কোম্পানির মার্কেটিং অ্যান্ড সেলস ডিরেক্টর পরশ আনন্দ জানিয়েছেন; “আমরা প্রথম ধাপে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের কাছে বল পৌঁছে দেওয়ার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। ৭২টি বল চাওয়া হলেও পরের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রথম ধাপে বোর্ডের কাছে দেওয়া হবে ৬০টি (৫ ডজন) বল। সেগুলো বাংলাদেশ আর ভারতের অনুশীলনের জন্য ভাগ করে দেওয়ার কথা শুনেছি। বোর্ডের সবুজ সংকেত পাওয়া মাত্র আমরা ম্যাচে খেলার বল পাঠিয়ে দেব।”

এদিকে টেস্ট সিরিজের জন্য অধিনায়ক মুমিনুল হকসহ আট খেলোয়াড় শুক্রবার ভারত যান। শনিবার কিছুটা সময় অনুশীলন করেছেন তারা। আপাতত লাল বল দিয়ে চলছে অনুশীলন। পরে মিলবে গোলাপী বল।

গোলাপী বলে কালো সুতা খুব একটা কার্যকর নাও হতে পারে। কৃত্রিম আলোয় হুট করে চোখের আড়াল হয়ে যেতে পারে বল। পেসার ইবাদতের শঙ্কা সাদা রংয়ের সুতার ক্ষেত্রেও হতে পারে একই চিত্র। দিবা-রাত্রির এখন পর্যন্ত যত ম্যাচ হয়েছে এর সবকটিতে ব্যবহার করা হয়েছে কোকাবোরা বল। ইডেন টেস্টে ব্যবহৃত হবে এসজি বল। এই বল কেমন আচরণ করবে তা নিয়ে একটি শঙ্কা থাকছেই।

ইন্দোরে প্রথম টেস্ট দিয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু হবে বাংলাদেশের। আগামী ১৪ নভেম্বর ইন্দোরে শুরু প্রথম টেস্ট। ম্যাচ পাঁচদিন গড়ালে দ্বিতীয় ম্যাচের আগে দুই দল হাতে পাবে তিন দিন। তিন দিনের অনুশীলনের জন্য দেওয়া হবে ৬০টি বল। ম্যাচ ডে’র আগেই ভারতীয় বোর্ডে পৌঁছে যাবে।