সাদমানের ব্যাটিং নৈপুণ্যে ইনিংস ব্যবধানে জয় ঢাকা মেট্রোর

ম্যাচ সেরা পুরস্কার হাতে সাদমান ইসলাম

চট্টগ্রামে জাতীয় লিগের চতুর্থ রাউন্ডে চট্টগ্রাম বিভাগের মুখোমুখি ঢাকা মেট্রো। টস জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় ঢাকা। ব্যাটিং করতে নেমে দুর্দান্ত শতক হাঁকান জাতীয় দলের ওপেনার সাদমান ইসলাম। ডাবল শতকের কাছে গিয়েও আক্ষেপ সাদমানের। তাসকিনদের বোলিং গতিতে ইনিংস ব্যবধানে হার চট্টগ্রাম বিভাগের।

ঢাকার হয়ে শুরুটা ভালো করতে পারে নি আজমির। হাসান মাহমুদের বলে শূন্য রানে ফিরেন তিনি। তার আগে শামসুর রহমান ৮ চারে ৫০ রান করে নাঈম হাসানের বলে ফিরেন। সেই সাথে মার্সাল ফিরেন ৪০ রানে। কিন্তু আল-আমীন খেলেন ৮৩ রানের ঝড়ো ইনিংস।

এদিকে ওপেন করতে নেমে পুরো দিন খেলেছেন সাদমান ইসলাম। দুর্দান্ত শতক হাঁকালেও অল্পের জন্যে ডাবল করতে পারেননি ভারত সফরের ডাক পাওয়া এই ওপেনার। ২ ছক্কা ও ২৩ চারে ১৭৮ রানে ইরফানের বলে বোল্ড হয়ে ফিরতে হয় তাকে।

ঢাকার দেওয়া বড় রান তাড়া করতে নেমে বিপাকে চট্টগ্রাম বিভাগ। তাসকিনের বোলিং তান্ডবে ফিরতে হয় সাদিকুর ২২, পিনাক ১২ ও ইয়াসার আলি ৬ কে। তাসকিন সাথে শরীফউল্লাহর দুর্দান্ত বলে ইরফান ১০, তাসামুল ২, অঙ্গন ১ ও রানা ১ রান করে ফিরেন। যার ফলে মাত্র ৯৯ রানে গুটিয়ে যায় চট্টগ্রাম বিভাগ।

৩১২ রানে পিছিয়ে থেকে আবারও দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামে চট্টগ্রাম। আবারো ব্যর্থ ওপেনার সাদিকুর ও ইরাফান। পরবর্তীতে পিনাক ঘোষের ২ ছক্কা ও ৫ চারে ৫৭ রান করে শরিফ উল্লার বলে ফিরেন। দলের অধিনায়ক ইয়াসির রাব্বি ১ ছক্কা ও ৭ চারে ৬৬ রান করেও শহিদের বলে ফিরতে হয়। পরে তাসামুলের ৩৯ ও নায়িমের ২৮ রানেও ইনিংস হার এড়াতে পারলো না চট্টগ্রাম বিভাগ। বল হাতে শহীদুল ৪,তাসকিন ও শরিফউল্লাহ নেন ২ টি করে উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর→
ঢাকা মেট্রো: ৪০৩/১০(১০৮.৪)
সাদমান ১৭৮, আল-আমীন ৮০
হাসান মাহমুদ ৩/৬৯

চট্টগ্রাম(১ম ইনিংস): ৯১/১০( ৩০.৫)
সাদিকুর ২২, পিনাক ১২
শরিফউল্লাহ ৪/৩০, তাসকিন ৩/৩৪

চট্টগ্রাম(২য় ইনিংস): ২৪৮/১০(৮০.২)
ইয়াসির ৬৬, পিনাক ৫৭
শহিদুল ৪/২৯, তাসকিন ২/৪৯

(ফলাফলঃ চট্টগ্রাম বিভাগের বিপক্ষে ইনিংস ও ৬৪ রানে জয়)