সাকিবকে নিয়ে চোখে কান্না আসার মত একটি ভিডিও!

ম্যাচ ফিক্সিং এর প্রস্তাব গোপনের দায়ে বাংলাদেশের টেস্ট ও টি টোয়েন্টি অধিনায়ক বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান কে এক বছরের জন্য নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রণ সংস্থা আইসিসি। সাকিবের নিষেধাজ্ঞা নিয়ে বিশ্বব্যাপী চলছে আলোচনা সমালোচনা। সাকিব কে নিয়ে যেন গনমাধ্যম গুলোর জয়জয়কার। কারও বিজ্ঞাপনে সাকিব কারও আবার হেড লাইনে। এবার সাকিব কে নিয়ে রক্ত জরা চোখে পানি আসার মত এক ভিডিও তৈরি করেছে একাত্তর টেলিভিশন। সাকিব ভক্তদের তৃপ্তি মিটাতে ভিডিওটি হুবহু তুলে ধরা হলো।

ভারত সফরে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। কিন্তু দেশের ক্রিকেট পাড়ায় আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে বাংলাদেশ ক্রিকেট এর মহানায়ক। কেমন করে এ ভুল করলেন বাংলাদেশের প্রান সাকিব আল হাসান। দেশের ক্রিকেট পাগলদের কাছে এই মুহুর্তে সাকিব আল হাসান যেন এক অসমাপ্ত গল্পের নাম।

দেশের ক্রিকেট বরপুত্র বনোভাসে। ক্রিকেট রাজ্য যেন তার রাজপুত্র কে তাড়িয়ে দিয়েছে একবছরের জন্য। ভুল করেছেন সাকিব। তাতে কোন সন্দেহ নাই। অনাকাঙ্ক্ষিত ভুলের দায়েও নিজের কাদে তুলে নিলেন। শাস্তি ও মেনে নিয়েছেন অকোপটে। তবে দুটো প্রশ্নের উত্তর যেন আজও মিলছে না।

প্রথম প্রশ্ন -জেনে বুঝে কেন সাকিব একজন জুয়াড়ির সঙ্গে সংলাপে জড়ালেন? যেকারনে আজ বাংলার আকাশে উনি এক খলনায়ক!
দ্বিতীয় প্রশ্ন- একজন জুয়াড়ির সাথে যোগাযোগ থাকার পরেও কেন সাকিব নিজের ক্রিকেট মেধাকে বিক্রি করে দিলেন না? উত্তর খুজে যাকে পাবেন সেই সাকিব আল হাসান। সে যে রিদ মাঝারে থাকা এক মহানায়কের নাম।

এই দুইটা প্রশ্নের উত্তর খুজতে গেলে আপনি নতুন সাকিব কে আবিষ্কার করবেন। কিন্তু কোন প্রশ্নের উত্তর আপনার কাছে অধিক অর্থবহ আপনি বলেন। ঘটনাক্রমে জানা গেছে এ বছরের ২৩শে জানুয়ারি সাকিবের বিষয় তদন্তে নেমেছিল আকসু। বিশ্বকাপ শুরুর ৪মাস আগে। অর্থাৎ পুরো দেশ যখন বিশ্ব কাপানোর প্রতিজ্ঞায় নিজেদের তৈরি করছেন , তখনি ১৮ কোটি মানুষের মনের মনি কোঠায় থাকা মানুষ টি হয়তো জেনে গেছেন – ক্রিকেটের মাঠে তিনি অনিশ্চিত।

তবে কি সে কারনে বিশ্ব ক্রিকেটের বিশ্ব মঞ্চে তীব্র রুদ্র মুর্তি ধারন করলেন সাকিব? ভুলের মাসুল দিতেই কি তবে নিজেকে গুছিয়ে নিয়েছেন সাকিব! সাকিব বলেছিলেন একটা ভুল নিজেকে এলোমেলো করে দিতে যথেষ্ট । যা আজ অব্দি খুলে বলেননি সাকিব। তবে কি ওই ভুলের অনুশোচনাই সে নিজেকে নিয়ে নিয়ে গেছেন অনান্য উচ্চতায়। সাকিব হয়ে গেলেন বাংলার কিংবদন্তি। তাই হয়তো বিশ্ব মঞ্চের প্রতিটি বলে ব্যাটে লিখে রাখলেন নিরব ক্ষমা প্রার্থী।

বাংলাদেশের বিশ্ব জয়ের স্বপ্ন অটুট রেখে, ২২গজে দাড়িয়ে থাকতে, ১৮ কোটি মানুষের ৩৬ কোটি চোখ ভিজানো যন্ত্রণা গুলো মাঠের ভাইরে আছরে ফেলতে, জমাট বাধা কষ্ট কে শক্তিতে রুপান্তর করে, আকাশ প্রানে তাকিয়ে আকাশে সরে দাডাতে বলে, রক্তিম সূর্যের বদলে বিশ্ব জুড়ে লাল সবুজের প্রতিনিধিত্ব করতে সাকিব ফিরবে! সাকিবকে ফিরতেই হবে। কারন এক সাকিবেই যে ১৮ কোটি মানুষ কে বাচার স্বপ্ন দেখানে একমাত্র পথচারী।