বল টেম্পারিংয়ের দায়ে শাস্তি পেলেন শেহজাদ

বল টেম্পারিং ক্রিকেটের এক অভিশাপের নাম। বছর দেড়েক আগেও বল টেম্পারিং কাণ্ডে টালমাটাল ছিলো পুরো ক্রিকেট বিশ্ব। সেই ঝাঁঝ কাটতে না কাটতে এবার টেম্পারিং ইস্যুতে খবরের শিরোনাম হয়েছেন পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান আহমেদ শেহজাদ। যদিও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের কোন ম্যাচে নয়, ঘরোয়া ক্রিকেটে বল বিকৃতি করেছেন তিনি। তার জন্য শাস্তিও পেতে হয়েছে শেহজাদকে।

গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে দক্ষিণ আফ্রিকায় করা বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে সাময়িক নিষিদ্ধ হয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ৩ ক্রিকেটার। এই ঘটনার পর রীতিমত নড়েচড়ে উঠেছিল পুরো ক্রিকেট বিশ্ব। সেই ঘটনার রেশ কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই আবার টেম্পারিং ইস্যু সামনে নিয়ে আসলেন শেহজাদ। ঘরোয়া ক্রিকেটে সেন্ট্রাল পাঞ্জাবের নেতৃত্ব দেয়ার সময় এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন তিনি।

২০০৯ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষিক্ত হন শেহজাদ। এরপর নিয়মিত হতে পারেননি জাতীয় দলে। পাকিস্তানের জার্সি গায়ে আসাযাওয়ার মধ্যে থাকেন এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। যেখানে সম্প্রতি ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কা সিরিজে দুই ম্যাচে সুযোগ পেলেও অস্ট্রেলিয়া সফরের দলে জায়গা হারিয়েছেন তিনি।

বর্তমানে খেলছেন কায়েদ-ই-আজম ট্রফিতে। টুর্নামেন্টে সেন্ট্রাল পাঞ্জাব এবং সিন্ধের মধ্যকার ম্যাচে বলের আকৃতি পরিবর্তন করেন শেহজাদ। সিন্ধের বিপক্ষে ম্যাচে শেহজাদ বল টেম্পারিং করেন বলে ম্যাচ রিপোর্টে জানান ম্যাচ রেফারি। তবে কোনো নিষেধাজ্ঞা নয়, কেবলমাত্র আর্থিক জরিমানা দিয়েই মাফ পাচ্ছেন জাতীয় দলের এ ওপেনার। ম্যাচ ফি’র ৫০ শতাংশ জরিমানা করা হয়েছে তাকে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) অফিশিয়াল টুইটার একাউন্টে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সেন্ট্রাল পাঞ্জাবের অধিনায়ক আহমেদ শেহজাদকে বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে।