নাসিরের অপরাজিত সেঞ্চুরিতে প্রাইম ব্যাংককে ৬ উইকেটে হারালো শেখ জামাল

Photo: Collected

আজ ডিপিএলে সুপার লিগের দ্বিতীয় ম্যাচে আরিফুল ও রুবেল মিয়ার ফিফটিতে শেখজামাল কে ২৩৭ রানের টার্গেট দেয় প্রাইম ব্যাংক।জবাবে ব্যাট করতে নেমে নাসির হোসেনের ১১২ ও ইলিয়াস সানির ফিফটিতে ৮ বল আগে থাকতে লক্ষ্য পৌঁছে যায় শেখ জামাল।

প্রাইম ব্যাংকের দেয়া ২৩৭ রানের লক্ষ্য ব্যাট করতে নেমে দলকে ভালো শুরু এনে দেন শেখ জামালের দুই ওপেনার ইমতিয়াজ ও ইলিয়াস সানি। দুজনের ব্যাট থেকে আসে ৪৫ রান।ব্যক্তিগত ২৬ রানে নাহিদুলের বলে এনামুলের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন ইমতিয়াজ।

ইমতিয়াজের বিদায়ের পর শ্রীলঙ্কান ব্যাটসম্যান দিলশান মুনয়ারা ১২ করে আউট হলে চাপে পড়ে শেখ জামাল। দিলশান মুনয়ারার বিদায়ের পর জুটি গড়েন নাসির হোসেন ও ইলিয়াস সানি।দুজনের ব্যাট থেকে আসে ৯৩ রান। দলীয় ১৬৪ রানে ৬৭ করে আউট হন ইলিয়াস সানি।

এরপর নুরুল হোসেন দ্রুত বিদায় নেন। এদিন দলের হয়ে দুর্দান্ত ব্যাটিং করে সেঞ্চুরি তুলে নেন নাসির হোসন। ১১০ বলে ১১২ রান করে অপরাজিত থেকে দলকে জয়ী করে মাঠ ছাড়েন তিনি।

প্রাইম ব্যাংকের হয়ে ২টি করে উইকেট নেন নাহিদুল ইসলাম ও আব্দুর রাজ্জাক।

এর আগে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই ওপেনার বিজয়কে হারায় প্রাইম ব্যাংক। তবে সুপার লিগের প্রথম ম্যাচেই ব্যাটিংয়ে নেমে দুর্দান্ত খেলছেন নামান ওঝা। ৯৬ মিনিট ক্রিজে থেকে ৭৭টি বল ফেস করে ৪৬ রানের ইনিংস সাাজান তিনি। রুবেল মিয়ার সাথে গড়েন দারুন জুটি। ইলিয়াস সানির বলে বোল্ড আউট হন এই ব্যাটসম্যান। মাত্র ২টি চারের সাহায্যে এই রান করেন ওঝা। রুবেল মিয়া করেন ৬৬ রান।

তাদের আউটের পর চাপে পড়ে প্রাইম ব্যাংক। একের পর এক উইকেট হারাতে থাকে তারা। তবে শেষ দিকে ব্যাটিংয়ে এসে দলের হাল ধরেন আরিফুল হক। দ্রুত গতিতে ব্যাট চালিয়ে ৩৮ বলে তুলে নেনে অর্ধশতক। ১৪০ রানে ৭ উইকেট হারা প্রাইম ব্যাংকে ৫১ বলে ৭৪ রানের ঝড়ো ইনিংসে খেলে ২৩৬ রানের পুজি এনে দেন তিনি। নির্ধারিত ওভারের ৯ বল আগে অলআউট হয় তারা।

শেখ জামালের হয়ে আরাফাত সানি ও তানভীর হায়দার ৩ টি করে উইকেট নেন।