ভারতের প্রো-কাবাডিতে জায়গা করে নিল দুই বাংলাদেশী খেলোয়াড়

ভারতের প্রো-কাবাডি লিগে এবারো থাকছেন দুই বাংলাদেশী খেলোয়াড়। জাতীয় কাবাডি দলের অধিনায়ক মাসুদ করিম গত মৌসুমের মতো এবারো খেলবেন এ লিগে। তার সঙ্গী হচ্ছেন বাংলাদেশ কারা কর্তৃপক্ষ দলের সাজিদ হোসেন।

বাংলাদেশ পুলিশ দলের রেইডার মাসুদ খেলবেন ইউপি যোদ্ধা দলের হয়ে। সাজিদ খেলবেন ফরচুন জায়ান্টস দলের হয়ে।

আগামী ১৯ জুলাই শুরু হচ্ছে এবারের প্রো-কাবাডি লিগ। এজন্য বিদেশী খেলোয়াড় কোটায় বাংলাদেশের আট খেলোয়াড়কে নিলামে তোলা হয়েছিল। তাদের মধ্য থেকে নিলামে মাসুদ ও সাজিদ বিক্রি হলেও বাকি ছয়জন দল পাননি। দুজনের মূল্যমান সমান ১০ লাখ রুপি করে।

‘আমার ওপর রাখা আস্থার প্রতিদান দিতে চেয়েছিলাম গত মৌসুমে। তাতে দলের নীতিনির্ধারকরা খুশি ছিলেন। এবারো সুযোগ পেয়ে ভালো লাগছে। আশা করছি, আগের চেয়ে ভালো নৈপুণ্য দেখাতে পারব’—গতকাল প্রতিক্রিয়ায় বলেন মাসুদ। এ রেইডার টানা দ্বিতীয় মৌসুম খেললেও এবারই প্রথম সুযোগ পেলেন সাজিদ। এ কারণে তার উচ্ছ্বাসটাও বেশি, ‘আল্লাহর রহমতে অনেক দিনের স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে। আমার জন্য সবাই দোয়া করবেন।’

প্রো-কাবাডি লিগ ভারতে বেশ জনপ্রিয়। এ আয়োজন ঘিরে সে দেশের উন্মাদনায় অভিভূত মাসুদ, ‘এ লিগ ঘিরে সেখানে উৎসবের আমেজ বিরাজ করে। খেলার পরিবেশও দুর্দান্ত। গত মৌসুমে লিগের জন্য আমি ভারতের ১০ অঙ্গরাজ্যে ঘুরেছি। কাবাডি নিয়ে তাদের যে উচ্ছ্বাস-উন্মাদনা দেখেছি, তা অন্য কোথাও চোখে পড়েনি।’

২০১৪ সালে প্রো-কাবাডি লিগে বাংলাদেশী কোনো খেলোয়াড় প্রথমবারের মতো অংশ নেন। সেবার জিয়াউর রহমান ও আরদুজ্জামান মুন্সী এ লিগে খেলেন। পরের বছর নিলামে অবশ্য কোনো বাংলাদেশী খেলোয়াড় বিক্রি হয়নি। ২০১৬ সালে খেলেন আরদুজ্জামান, তুহিন তরফদার ও জাকির। ২০১৭ সালে সোলায়মান, জিয়াউর রহমান জুনিয়র ও জাকির প্রো-কাবাডি লিগে অংশগ্রহণ করেন।

গত মৌসুম ইউপি যোদ্ধা দলে সুযোগ পান সোলায়মান কবির। কিন্তু শেষ পর্যন্ত এ খেলোয়াড়ের যাওয়া হয়নি।