১২ বলে ৬ রান নিতে ব্যর্থ; সুপার ওভারে তাহিরের বিস্ময়কর বোলিং(ভিডিও)

সফরকারী শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে রোমাঞ্চকর ম্যাচে সুপার ওভারে জিতল দক্ষিণ আফ্রিকা।

প্রথম ব্যাট করা শ্রীলংকাকে ১৩৪ রানে গুটিয়ে দিয়ে সহজ জয়ের প্রত্যাশা করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। কিন্তু শেষ দিকে তাদের উইকেট হারানোর মিছিল লম্বা হওয়ায় জমে উঠলো নাটক। রোমাঞ্চকর টাইয়ের দেখা মিললো কেপটাউনে দুই দলের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে। তাতে সুপার ওভারে জয়ের স্বাদ পেলো স্বাগতিকরা।

কেপটাউনে টস জিতে ফিল্ডিং নিয়ে বোলারদের কাছ থেকে দারুণ সহযোগিতা পায় দক্ষিণ আফ্রিকা। স্বাগতিক বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিং ও ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ৭ উইকেটে ১৩৪ রান করে শ্রীলঙ্কা। এরপর শেষ বলের নাটকীয়তায় ৮ উইকেটে ১৩৪ রানে বেধে দেয় তারা প্রোটিয়াদের।

শুরু থেকে ১৩৫ রানের লক্ষ্য সহজে ছোঁয়ার আভাস দেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। যদিও ৩ উইকেট তারা হারায় ৫২ রান করতেই। বিদায় নেন রিজা হেনড্রিকস (৮), কুইন্টন ডি কক (১৩) ও ফাফ দু প্লেসি (২১)। এই ধাক্কা সামলে নিতে সময় লাগেনি প্রোটিয়াদের। রাসি ফন ডার ডাসেনের সঙ্গে ডেভিড মিলারের ৬৬ রানের জুটি স্বস্তিতে ফেরায় তাদের।

ম্যাচে দারুণ ব্রেকথ্রু আনেন লাসিথ মালিঙ্গা। ফন ডার ডাসেনকে ৩৪ রানে ইসুরু উদানার ক্যাচ বানান লঙ্কান অধিনায়ক। দুই বল পর মিলার ইনিংস সেরা ৪১ রানে রান আউট হন। ২৩ বলে ৫ চার ও ১ ছয়ে সাজানো তার ইনিংস। দুই নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যানের বিদায়ে ভেঙে পড়ে স্বাগতিকদের ব্যাটিং লাইন। পরের দুই ওভারে আরও দুটি উইকেট হারায় তারা। তারপরও শেষ ওভারে খুব বেশি রানের দরকার ছিল না দক্ষিণ আফ্রিকার।

৩ উইকেট হাতে রেখে শেষ ওভারে মাত্র ৫ রানের জন্য খেলতে নামে প্রোটিয়ারা। ক্রিজে ছিলেন জেপি দুমিনি আর ডেল স্টেইন। প্রথম বলে মাত্র ১টি রান নেন দুমিনি। কিন্তু স্টেইন পরের দুই বলে রান করতে না পারায় চাপে পড়ে স্বাগতিকরা। চতুর্থ বলে দৌড়ে একটি রান নিয়ে স্ট্রাইকে দুমিনিকে দেন তিনি। স্টেইনের ওপর ভরসা না করায় পঞ্চম বলে দুটি রান নিতে গিয়ে রান আউট হন দুমিনি। শেষ বলে ২ রান প্রয়োজন পড়লে ইমরান তাহির একটির বেশি রান নিতে পারেননি।

এদিকে দলকে শেষ বলে জেতাতে না পারলেও সুপার ওভারে দারুণ অবদান রাখেন তাহির। প্রথমে ব্যাট করে মিলারের একটি করে চার ও ছয়ে সাজানো দারুণ ব্যাটিংয়ে শ্রীলঙ্কাকে ১৫ রানের টার্গেটে দেয় প্রোটিয়ারা। জবাব দিতে নেমে এই লেগ স্পিনার ইমরান তাহিরের দুর্দান্ত নৈপুণ্যের কাছে পেরে ওঠেনি সফরকারীরা। তাহির সুপার ওভারে দেন মাত্র ৫ রান।

তার আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৭৬ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে শ্রীলঙ্কা। তবে শেষ দিকে ব্যাটসম্যানদের ছোটখাটো ইনিংস অবদান রাখে ওই ধাক্কা সামলে উঠতে। লঙ্কানদের পক্ষে কামিন্দু মেন্ডিস সর্বোচ্চ ৪১ রান করেন। থিসারা পেরেরা দ্বিতীয় সেরা ১৯ রানের ইনিংস খেলেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে আন্দিল ফেলুকায়ো সবচেয়ে বেশি ৩ উইকেট নেন। ম্যাচসেরা হয়েছেন মিলার।

জিতে তিন ম্যাচের সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেলো দক্ষিণ আফ্রিকা। শুক্রবার সেঞ্চুরিয়নে হবে দ্বিতীয় ম্যাচ।

হাইলাইটস দেখুন এখানে…

https://youtu.be/FGjAtGGPeO8