দলীয় সাফল্যটাকেই গুরুত্ব দিচ্ছেন নাফিস

বিপিএলের গেল আসরে ব্যাট হাতে রানের ফুলঝুড়ি ছুটলেও চলতি আসরে এখনও বড় ইনিংসের দেখা পাননি রংপুর রাইডার্স ব্যাটসম্যান শাহরিয়ার নাফিস। ৭ ম্যাচে তার ব্যক্তিগত সংগ্রহ যথাক্রম ৩৫, ২৬, ২৩, ০, ৮, ৯, ০।

নাফিসের মতো অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানের জন্য বিষয়টি হতাশার। কিন্তু উল্লেখ করার মত বিষয় হলো এ নিয়ে তার মধ্যে কোন হতাশা কাজ করছে না।

ব্যাট হাতে সাধারণত ওপেনিংয়ে নেমে থাকেন। এটাই তার পছন্দের ব্যাটিং অর্ডার। অথচ রংপুরের হয়ে এখনও নিজের পছন্দের পজিশনে তার নামা হয়নি ৩২ বছর বয়সী নাফিসের। নামবেনই বা কী করে? দলে যে গেইল, ম্যাককালামদের মতো হেভিওয়েট ওপেনাররা আছেন।

অবশ্য সেটি নিয়েও তার কোন অভিযোগও নেই। বরং টুর্নামেন্টে নিজ দলের ধারাবাহিক সাফল্যকেই বড় করে দেখছেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের এক সময়ের মারকুটে এই ব্যাটসম্যান।

বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) বাংলানিউজকে বিষয়টি জানান বাঁহাতি এই স্টাইলিশ ব্যাটসম্যান। তিনি বলেন, ‘আমার পারফরম্যান্সে মোটেও হতাশ নই এবং অর্ডার নিয়ে কোন অভিযোগ নেই। বরং ভালো খেলে নিজেদের প্রাথমিক লক্ষ্যের খুব কাছাকাছি পৌঁছে গেছি এটাই বড় ব্যাপার। কেননা টপ ফোরই আমাদের প্রাথমিক লক্ষ্য ছিল। সেখানে উঠতে পারলেই ফাইনাল বা সেমিফাইনাল নিয়ে চিন্তা করবো। তবে আমি মনে করি আমরা যে ধরণের ক্রিকেট খেলছি তাতে জয় পাচ্ছি।’

মাশরাফি বিন মর্তুজার অধিনায়ত্বের প্রশংসা করতেও ভোলেননি নাফিস। ভুলে যাননি গেইল, ম্যাককালাম ও মিথুনকেও প্রশংসার জোয়ারে ভাসাতে, ‘প্রয়োজন অনুযায়ী আমাদের কেউ না কেউ ভালো করছেই। মাশরাফি ভাই ভালো অধিনায়কত্ব করছে। ক্রিস গেইল, ম্যাককালাম, রবি বোপারা ও মিথুন ভালো খেলছে। তবে আমি বিশ্বাস করি এখনও আমরা আমাদের সামর্থ্যের ৬০ ভাগও খেলতে পারিনি। আমরা এখনও পুরোপুরি সামর্থ্য দেখাতে পারিনি।’

‘আমরা যদি ৮০-৯০ ভাগ সামর্থ্য দেখাতে পারি তাহলে এই টুর্নামেন্টের শিরোপার একটা দাবীদার হতে পারবো। সবাই মিলে আরও কম্প্যাক্ট ক্রিকেট খেলতে পারলে আমাদের হারানো কঠিন হবে।’

বিপিএলে গ্রুপ পর্বে ৯ ম্যাচ খেলে ৫ জয় ও ৪ হারে ১০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের চার নম্বরে রংপুর রাইডার্স। শনিবার (২ ডিসেম্বর) মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে নিজেদের ১০ম ম্যাচে মোকাবিলা করবে শীর্ষস্থানধারী তামিমের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সেকে।