আবারো প্রশ্নবিদ্ধ আল-আমিনের বোলিং অ্যাকশন

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) পঞ্চম আসরে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের পেসার আল-আমিন হোসেনের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে রিপোর্ট করা হয়েছে। খুলনা টাইটানসের বিপক্ষে দলীয় ১৫তম ওভারে তার বোলিং নিয়ে সন্দেহ হয় ফিল্ড আম্পায়ারদের। এরপরই অভিযোগ আনা হয় তার বিরুদ্ধে।

২০১৪ সালে আরও একবার আল-আমিনের বোলিং অ্যাকশনে ত্রুটি ধরা পড়েছিল। সেবার দুই দফা পরীক্ষা দিয়ে বোলিং করার বৈধতা পান তিনি।

বোলিং অ্যাকশন রিপোর্টেড হলেও আপাতত খেলতে বাধা নেই আল আমিনের। নিয়ম অনুযায়ী আগামী দুই সপ্তাহ খেলতে পারবেন তিনি। ২৯ নভেম্বর থেকে ১২ ডিসেম্বর- এই দুই সপ্তাহ সুযোগ পাচ্ছেন তিনি খেলার। এর মধ্যেই শেষ হয়ে যাবে বিপিএলের চলতি আসর। সবমিলিয়ে তার অ্যাকশনে ত্রুটি ধরা পড়লেও বিপিএল মিস হচ্ছে না এই পেসারের।

আল-আমিনের ব্যাপারে বোলিং অ্যাকশন পর্যবেক্ষণ কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বাংলা ট্রিবিউনকে বলেছেন, ‘খুলনা টাইটানসের (২৮ নভেম্বর) বিপক্ষে বোলিং অ্যাকশন নিয়ে আল-আমিনের বিরুদ্ধে রিপোর্ট করা হয়েছে। তবে আগামী ১৪ দিন তার বোলিং করতে কোনও সমস্যা নেই।’

তবে ১৪ দিনের মধ্যেই রিভিউ কমিটির কাছে রিপোর্ট করতে হবে আল-আমিনকে। এরপর তাকে পরবর্তী পদক্ষেপের ব্যাপারে অবহিত করা হবে। জালাল ইউনুস বলেছেন, ‘১৪ দিনের মধ্যে তাকে রিপোর্ট করতে হবে। এরপর তার বোলিং অ্যাকশন দেখা হবে। তখন কোনও সমস্যা পাওয়া গেলে পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত হবে। তারপর তার অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে আমরা সিদ্ধান্ত নেব।’

যদিও বিষয়টি নিয়ে খুব একটা চিন্তিত নন আল আমিন। বাংলা ট্রিবিউনকে এই পেসার বলেছেন, ‘আম্পায়ারদের যে কোনও ওভার নিয়েই সন্দেহ হতে পারে। তাই বলে আমার অ্যাকশন অবৈধ হয়ে যাচ্ছে, এমনটা আমি মনে করছি না। আমার দুই সপ্তাহ সময় আছে। এরপর রিভিউ কমিটির তত্ত্বাবধানে কাজ করব।’