শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে ঢাকাকে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে কুমিল্লা

ঢাকা ডায়নামাইটসকে ১২ রানে হারিয়ে বিপিএল পয়েন্ট টেবিলে ফের শীর্ষে উঠলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। টসে হারা কুমিল্লা প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ছয় উইকেট হারিয়ে ১৬৭ রান করে। জবাবে ২০ ওভার খেললেও আট উইকেট হারিয়ে ১৫৫ রানের বেশি করতে পারেনি ঢাকা।

এ নিয়ে বিপিএলে দু’বারের দেখায় ঢাকাকে হারালো কুমিল্লা।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ১৬৮ লক্ষ্যে খেলতে নেমে কুমিল্লা বোলারদের তোপে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় ঢাকা। তবে এক প্রান্তে আগলে রাখেন ওপেনার জো ডেনলি। ৩৯ বলে ছয়টি চার ও দুটি ছক্কায় ৪৯ করে তিনি সাইফুদ্দিনের বলে বোল্ড হন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ কাইরন পোলার্ড ২৭ করে ডোয়েন ব্রাভোর কট এন্ড বোল্ডের শিকার হন।

মোসাদ্দেক হোসেন কিছুটা প্রতিরোধোর চেষ্টা করেন। তবে সাত বলে তিনটি চারের ১৭ করে তিনি রান আউট হন। সমান ১৭ রান করে করে সাইফের দ্বিতীয় শিকার হন জহুরুল ইসলাম। কুমিল্লা বোলারদের মধ্যে ব্রাভো চার ওভারে ৩১ রানে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট নেন। দুটি উইকেট পান সাইফুদ্দিন। আর একটি তুলে নেন শোয়েব মালিক।

এর আগে কুমিল্লার ব্যাটিংয়ে শুরুটা দুর্দান্ত করেন দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও লিটন দাশ। উদ্বোধনী জুটিতে তাদের ব্যাট থেকে আসে ৬০ রান। তবে প্রতিপক্ষ দলনেতা সাকিব আল হাসানকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ব্যক্তিগত ৩৭ রানে ক্যাচ হয়ে বিদায় নেন কুমিল্লা অধিনায়ক। এ সময় ২৩ বলে পাঁচটি চার হাঁকান তিনি।

এর কিছুক্ষণ পর আরেক ওপেনার লিটনও মাঠ ছাড়েন। সেই সাকিবের বলেই ৩৪ রানে জহুরুল ইসলাম তাকে স্ট্যাম্পিংয়ের ফাঁদে ফেলেন। ২৬ রান করে কেভন কুপারের বলে কাইরন পোলার্ডকে ক্যাচ দেন ইমরুল কায়েস।

দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৩৯ রান করেন মারলন স্যামুয়েলস। ২৭ বলে পাঁচটি চার ও দুটি ছক্কায় নিজের ইনিংস সাজিয়ে কুপারের শিকার হন এ ক্যারিবীয়ান। আর চার রান করে কুপারের তৃতীয় শিকার হন জস বাটলার। ডোয়েন ব্রাভো ছয় রান করে রান আউটের শিকার হন। শোয়েব মালিক নয় ও হাসান আলী আট রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন।