পাকিস্তানে খেলতে না যাওয়ায় অধিনায়কত্ব হারালেন থারাঙ্গা

খুব বাজে সময় যাচ্ছে শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটে। মাঠের খেলায় তো একের পর এক লজ্জা, এরপর বোর্ডের ওপর সরাসরি রাজনৈতিক হস্তক্ষেপে আরও সংকটের সৃষ্টি হয়েছে।

সেই ধারাবাহিকতায় এবার বোর্ডের সিদ্ধান্তে একমত না হয়ে পাকিস্তানে খেলতে না যাওয়ার অধিনায়কত্ব কেড়ে নেওয়া হল উপুল থারাঙ্গার! তার জায়গায় টি-টোয়েন্টির পর এবার একদিনের দলের নেতৃত্ব পেলেন থিসারা পেরেরা।
পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ ম্যাচ লাহোরে খেলতে যেতে অস্বীকৃতি জানান অধিনায়ক থারাঙ্গা সহ শ্রীলঙ্কার বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার। তবে সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রথম দুটি ম্যাচ খেলতে আপত্তি ছিল না থারাঙ্গাদের। নির্বাচকরা একই সিরিজের জন্য দুটি পৃথক দল গড়তে চাননি। ফলে গোটা টি-টোয়েন্টি সিরিজের দলে জায়গা হয়নি শ্রীলঙ্কান ওপেনারের। তার বদলি অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন অল-রাউন্ডার থিসারা পেরেরা।

আনকোরা দল নিয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৩-০ ব্যবধানে সিরিজ হারলেও বোর্ডের পাশে দাঁড়ানোর পুরস্কার পেলেন পেরেরা। ভারত সফরের ওয়ানডে সিরিজে শ্রীলঙ্কার নেতৃত্বে ভার তুলে দেওয়া হল থিসারাকে। ওয়ানডে সিরিজ পরবর্তী টি-টোয়েন্টি সিরিজেও নেতৃত্বে বহাল থাকছেন তিনি।

গত জুলাইয়ে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ ক্যাপ্টেনসি ছেড়ে দেওয়ার পর টেস্টে দিনেশ চান্দিমাল ও সীমিত ওভারের ক্রিকেটে উপুল থারাঙ্গা শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক নির্বাচিত হয়েছিলেন। শুরুতেই ভারতের বিপক্ষে মুখ থুবড়ে পড়লেও পাকিস্তান সিরিজে চান্দিমাল টেস্টে নির্ভরতা দিয়েছিলেন দলকে। থারাঙ্গা অবশ্য ইতিবাচক ছাপ রাখতে ব্যর্থ হয়েছেন। তার ব্যাটিং নিয়ে সংশয় না থাকলেও নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠছিল।

এই অবস্থায় ম্যাথুজকে ফেরানোর কথাও ভেবেছিলেন শ্রীলঙ্কান নির্বাচকরা। চোট-আঘাতে জর্জরিত ম্যাথুজের সব ম্যাচে মাঠে নামা নিশ্চিত নয় বলেই তাকেও হিসাবের বাইরে রাখা হয়। চান্দিমালের নামও নির্বাচকদের বিবেচনায় ছিল। তার ওয়ানডে ফর্ম আশানুরূপ না হওয়ায় শেষ পর্যন্ত থিসারা পেরেরার ঘাড়ে উঠে দায়িত্ব। পাকিস্তানের বিপক্ষে দলকে একজোট করার প্রচেষ্টাই পেরেরাকে নেতৃত্বের দৌঁড়ে সবার আগে জায়গা করে দেয়।