রিয়ালে যেতে রোনালদোর বিদায় চান নেইমার

রিয়াল মাদ্রিদ যদি সত্যিই তাকে পেতে চায় তবে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে বিদায় করতে হবে! গ্যালাকটিকোদের নাকি এই বার্তা দিয়ে রেখেছেন নেইমার। স্প্যানিশ ক্রীড়া ম্যাগাজিন ‘ডন ব্যালন’র বরাত দিয়ে প্রকাশিত খবর আলোচনার ঝড় তুলেছে।

গত আগস্টে ট্রান্সফার ফি’র বিশ্ব রেকর্ড গড়ে বার্সেলোনা (২০১৩-১৭) অধ্যায়ের ইতি টানেন ব্রাজিলিয়ান সেনসেশন। নতুন ঠিকানা হিসেবে বেছে নেন পিএসজিকে। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে প্যারিসে ‘অসুখী’ নেইমারের অদূর ভবিষ্যতে বার্সার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়ালে যোগ দেওয়ার একটা জোরালো গুঞ্জন ওঠে।

বলে রাখা ভালো, নেইমারের স্বদেশী কিংবদন্তি রোনালদো খেলোয়াড়ী জীবনে বার্সা থেকে ইন্টার মিলান হয়ে রিয়ালে নাম লিখিয়েছিলেন। পর্তুগিজ আইকন লুইস ফিগো তো বার্সা ছেড়ে সরাসরিই রিয়ালের জার্সি গায়ে জড়িয়েছিলেন। নেইমারের বেলায় সম্ভাবনাটা সত্যিতে রূপ নিলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

নেইমার ও রোনালদোর জন্ম কিন্তু একই দিনে। ৫ ফেব্রুয়ারি। খেলেনও একই পজিশনে আক্রমণভাগের বাঁ প্রান্তে। বয়সে সাত বছরের ছোট পেলের উত্তরসূরি। আগামী বছর ৩৩-এ পা রাখবেন ফিগোর স্বদেশী সুপারস্টার। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে ২০০৯ সালে মাদ্রিদে পাড়ি জমিয়ে নিজেকে সর্বকালের সেরাদের কাতারে নিয়ে গেছেন সিআর সেভেন। স্প্যানিশ জায়ান্টদের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলস্কোরারও তিনি।

রিয়ালে নেইমারই হবেন রোনালদোর যোগ্য উত্তরসূরি। সুযোগ থাকলে সাবেক বার্সা তারকাকে যেকোনো মূল্যে আনতে প্রস্তুত সান্তিয়াগো বার্নাব্যু। লস ব্লাঙ্কসদের অধিনায়ক সার্জিও রামোস তো বলেই দিয়েছেন, নেইমারের জন্য রিয়ালের দরজা খোলা থাকবে। জাতীয় দলের সতীর্থ ক্যাসেমিরোও নেইমারকে পাওয়ার ব্যাপারে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন।

কিন্তু নেইমার জুড়ে দিয়েছেন কঠিন এক শর্ত!  তাকে পেতে চাইলে রিয়ালকে রোনালদো অধ্যায়ের ইতি টানতে হবে। বলা হচ্ছে, এজেন্ট ওয়াগনার রিবেইরোর মধ্যস্থতায় নেইমারের বাবা ও রিয়াল প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ নাকি আলোচনা করছেন।

‘ডন ব্যালন’ তাদের রিপোর্টে দাবি করছে, বার্নাব্যুবে লম্বা ক্যারিয়ার গড়তে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হওয়ার আগে রোনালদোকে চলে যেতে হবে। বার্সায় মেসির ছায়া থেকে বেরিয়ে এসে রোনালদোর সঙ্গে খেলে একই পরিস্থিতির শিকার হতে চান না ‘ব্রাজিলিয়ান পোস্টারবয়’।

নেইমারের এমন দাবির কথা সত্যি হয়ে থাকলে রিয়ালের প্রতিক্রিয়া কেমন হবে সেটিই এখন দেখার বিষয়! ক্লাবের বহুল সাফল্যের কারিগর রোনালদোর সঙ্গে গত বছরের নভেম্বরে নতুন চুক্তি করে তারা। যার মেয়াদ শেষ হবে ২০২১ সালে।

আরেকটি কথা না বললেই নয়, নেইমার চাইলেই কি তাকে পিএসজি ছেড়ে দেবে? যাকে পেতে যে কম অপেক্ষা করতে হয়নি ফ্রেঞ্চ জায়ান্টদের। গুণতে হয়েছে ২২২ মিলিয়ন ইউরো। যা আগের রেকর্ড ট্রান্সফার ফি’র দ্বিগুনেরও বেশি।

বিশ্বের সেরা খেলোয়াড় হওয়ার লক্ষ্য নিয়ে ইউরোপে একা একটি ক্লাবকে প্রতিনিধিত্ব করার প্রবল ইচ্ছা থেকে পিএসজিকে বেছে নিয়েছেন বলে বার্সা ছাড়ার কারণ হিসেবে দেখিয়েছিলেন নেইমার। রোনালদো থাকা অবস্থায় রিয়ালকে প্রতিনিধিত্ব করতে পারবেন না। খেলার পজিশন নিয়েও তৈরি হবে জটিলতা। সেজন্যই হয়তো রোনালদোকে টিমমেট হিসেবে দেখতে চাইছেন না ‘আগামীর বিশ্বসেরা’।