যে কারনে সন্মান বেড়েছে সাকিবদের

বাংলাদেশ দল বেশ কয়েক বছর ধরেই দুর্দান্ত খেলছে। অসাধারণ পারফরমেন্সে বিশ্বের অন্যতম পরাশক্তি হিসেবে নিজেদের জানান দিচ্ছে। শুধু ওয়ানডে নয় তিন ফরম্যাটের ক্রিকেটেই শক্তিশালী দল টাইগাররা। সময়ের পরিবর্তনের ফলে বড় দলগুলো সমীহের চোখে দেখে বাংলাদেশকে।

টাইগার অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানও এই কথার সাথে একমত। তিনি মনে করেন, বাংলাদেশ নিয়ে বিশ্ব ক্রিকেটে এই যে মানসিকতার পরিবর্তন, তাতে দেশের ক্রিকেটারদেরও সম্মান বেড়েছে কয়েকগুণ। ফলে দেশের সম্মানও বেড়েছে। যার কারণে বড় দলের অন্য খেলোয়াড়দের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে চলতে পারেন তারা।
সিপিএলে খেলতে যাওয়ার আগে আজ মিরপুর স্টেডিয়ামের মিডিয়া লাউঞ্জে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন বাংলাদেশ দলের টি২০ অধিনায়ক। সিপিএলে বড় বড় খেলোয়াড়দের সাথে কি কথা হয় তা বলতে গিয়ে সাকিব জানিয়েছেন,
‘এখন তো অন্য রকম কথাবার্তা হয়। আমাদের খেলোয়াড়দের সম্পর্কে জানতে চায় তারা। দল হিসেবে আমরা কীভাবে এতো ভালো করছি, সে বিষয়েও প্রশ্ন করে। আমরাও বড় দলের খেলোয়াড়দের মতো কথা বলতে পারি। চিন্তা করি যে, এখন এভাবে কথা বলা যায়।’

সিপিএলের এবারের আসরে সাকিবের সঙ্গে এই টুর্নামেন্ট মাতাবেন আরেক টাইগার অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ। তিনি খেলবেন ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের হয়ে। সাকিব যথারীতি তার আগের দুই আসরের দল জ্যামাইকা তালাওয়াসের হয়ে মাঠে নামবেন।
সামনে অস্ট্রেলিয়া সিরিজটা না থাকলে হয়তো বাংলাদেশের আরও কয়েকজন ক্রিকেটার সিপিএলে গিয়ে খেলতে পারতেন বলে মনে করেন সাকিব। বেশ কয়েকজন টাইগার ক্রিকেটারের সাথে এ ব্যাপারে কথাও হয়েছিল।
এই প্রসঙ্গে সাকিব বলেন, ‘আমি তো শিওর যে, এ বছর যদি পুরো টুর্নামেন্ট খেলার সুযোগ থাকত, তাহলে আরও দু-একজন যেতে পারত। দু-একজনের নামও বলাবলি হচ্ছিল; কিন্তু আমাদের তো খেলা আছে। টাইম ফিক্সড থাকে না। অন্য দলগুলোর জন্য আমাদের নিতে ঝামেলা হয়ে যায়। কারণ পরে যদি বলা হয়, টিম আসবে আমাদের ফিরতে হবে।’