ছবি যেখানে কথা বলে!

ট্রান্সফার ফি’র বিশ্বরেকর্ড গড়ে পিএসজিতে যোগ দিতে যাচ্ছেন বার্সেলোনার ব্রাজিল আইকন নেইমার। নেইমারকে পেতে রিলিজ ক্লজ (ক্লাবের ইচ্ছার বিরুদ্ধে যেতে চাইলে এ পরিমাণ অর্থ দিতে হবে) বাবদ রেকর্ড ২২২ মিলিয়ন দিতে প্রস্তুত পিএসজি।

আমেরিকার মাটিতে এল ক্লাসিকোর ম্যাচ শেষে বার্সার পুরো দল স্পেনে ফিরে আসলেও ব্যক্তিগত জেট বিমানে চড়ে নেইমার উড়াল দিয়েছেন চীনে। স্পন্সরদের সাথে চুক্তির কারণেই এশিয়া সফরে নেইমার। এরপরই তার গন্তব্য কাতার। সেখানে পিএসজির মালিকের সঙ্গে চুক্তি নিয়ে সরাসরি কথা বলবেন তিনি। এরপর চুক্তি সই, তারপর নিয়মমাফিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা। ‘স্পোর্ট’র বরাত দিয়ে ‘ডেইলি মিরর’ বলছে এ সপ্তাহেই পিএসজির মেডিকেল সম্পন্ন করতে পারেন নেইমার।

এদিকে, বার্তা সংস্থা এএফপির একটি ছবি ধারনা দিচ্ছে, এল ক্লাসিকোর ম্যাচই নেইমারের শেষ ম্যাচ। রিয়ালের বিপক্ষে আমেরিকার মাটিতে সেই ম্যাচে মেসি-সুয়ারেজদের তুলে নেওয়ার পর আরও ১০ মিনিট মাঠে ছিলেন নেইমার। মাঠ থেকে চলে আসার সময় সাইডবেঞ্চে থাকা মেসি-সুয়ারেজদের সাথে হাত মেলান নেইমার। ছবিতে স্পষ্টই দেখা যায়, মেসিরা নেইমারের সাথে হাত মেলাচ্ছেন ঠিকই, কিন্তু তার দিকে তাকাননি কেউই। কিছুটা বিরক্তি ভাব তাদের চোখেমুখে। আগ্রহ না থাকলেও যেন ভদ্রতার বেশ ধরেই হাতে হাত মেলানো। সুয়ারেজ মুখে আঙ্গুল দিয়ে নিশ্চুপ ছিলেন। নেইমারের মুখেও ছিল না আগের সেই হাসি। যেন মেসিদের চোখে চোখ রাখতে পারছেন না। মেসির পাশে বসে থাকা উঠতি তারকা মুনির আল হাদ্দাদি হাত মেলানোর দায়িত্বটা পালন না করলেই বোধহয় খুশি হতেন। এই মেসি-সুয়ারেজরাই নেইমারকে বার্সায় থেকে যেতে অনুরোধ করেছিলেন।

মাঠ ও মাঠের বাইরে মেসি-সুয়ারেজদের সঙ্গে নেইমারের সম্পর্কটা ছিল দুর্দান্ত। অনেকবারই সেটা নিজ মুখে বলেছেন নেইমার। বার্সার এই আক্রমণভাগের তিন অস্ত্র মিলে গত তিন মৌসুমে ক্লাবকে টেনে নিয়েছেন। অথচ পিএসজিতে যাওয়ার কথা চলা অবস্থায় নেইমার অনুশীলনে নতুন খেলোয়াড় নেলসন সেমেদোর সঙ্গে তর্কে জড়িয়েছেন, যা হাতাহাতির পর্যায়ের। আমেরিকায় এল ক্লাসিকের পর বিখ্যাত গলফার টাইগার উডসের সঙ্গে দেখা করে ছবি তুলেছেন মেসি-সুয়ারেজ। সেই ছবিতে ছিলেন না নেইমার। আলাদাভাবেই নেইমার ছবি তুলেছেন টাইগার উডসের সঙ্গে।উড়ো খবর, নেইমারের বাবা সিনিয়র নেইমার বার্সা থেকে ছেলের পিএসজিতে যাওয়ার সব বন্দোবস্ত করেছেন শুধুই অর্থের লোভে। নেইমারের এজেন্ট হিসেবে বার্সা থেকে পিএসজিতে ট্রান্সফারের বিনিময়ে মোটা অঙ্কের কমিশন পাবেন তিনি। সেই আশাতেই তিনি ছেলেকে উৎসাহিত করছেন বার্সা থেকে পিএসজিতে যেতে। এদিকে, ‘ক্যালসিওমের্কাটো’ নামের ফরাসি একটি পত্রিকা জানিয়েছে, ইতোমধ্যে নেইমারের নাম লেখা জার্সি বিক্রি শুরু করেছে পিএসজি। ২০১৩ সালে স্বদেশী ক্লাব সান্তোস ছেড়ে বার্সায় যোগ দেন নেইমার। সে সময় ছেলেকে বার্সায় সই করতে দেয়ার বদলে যৌনকর্মীদের সঙ্গ দাবি করেছিলেন নেইমারের বাবা। সেই দাবি নাকি লিখিতভাবে চুক্তিতেও রাখা হয়েছিল! যাবতীয় অভিযোগ তুলেছিলেন নেইমারের শৈশবের ক্লাব সান্তোসের সাবেক প্রধান লুই রিবেরো। নেইমারের চুক্তিপত্রে নাকি লেখা ছিল, চুক্তি অনুযায়ী তার বাবা সব রকমের সুবিধা পাবে। বিনামূল্যে খাবার খাওয়া থেকে শুরু করে নেইমারের চুক্তিতে ছিল তার বাবা লন্ডনের পিকাডিলি হোটেলে যৌনকর্মীদের সঙ্গে রাত কাটাতে পারবেন।

নেইমারের বাবার ২০১৪ সালে বলা কিছু কথা পড়া যাক। জনপ্রিয় ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ানে তিনি বলেছিলেন, ‘অর্থ কখনো মূর্খতাকে ক্ষমা করে না। অর্থের মোহ থেকে নিজেকে রক্ষা করতে হয়। এ কারণেই আমি আমার ছেলের যত্ন নিয়েছি সচেতনতার সঙ্গে। আমি তাকে স্বাধীনতা দিয়েছি যাতে সে সফল হতে পারে। আমলাতন্ত্র অবলম্বন করেছি যেন সে তার ক্ষমতার সর্বোচ্চ ব্যবহার করতে পারে। এটা কোনো লোভ ছিল না, ছিল দায়িত্ব (সংগৃহীত তথ্যসূত্র)।’