পূজারা-রাহানের পর রান পেলেন অশ্বিন, লাঞ্চ পর্যন্ত ভারত ৫০৩/৭

লাঞ্চ ব্রেক
৩৯৯ রান নিয়ে দিন শুরু করেছিল ভারত। হাতে ছিল ৭ উইকেট। কিন্তু লাঞ্চ ব্রেকে যাওয়ার আগে পর্যন্ত ৫০০ রানের গণ্ডি পেড়তে ভারতকে হারাতে হল আরও চার উইকেট। চেতেশ্বর পূজারা ১৫৩ ও অজিঙ্ক রাহানে ৫৭ রান করে ফিরলেন প্যাভেলিয়নে। তাঁর পর একমাত্র রবিচন্দ্রন অশ্বিন ৬০ বলে ৪৭ রানের ইনিংস খেললেন। ১৬ রান করে আউট হলেন বাংলার উইকেট কিপার ঋদ্ধিমান সাহা। এই মুহূর্তে ক্রিকেট রয়েছেন প্রথম দেশের হয়ে টেস্ট ম্যাচে খেলতে নামা হার্দিক পাণ্ড্য ও রবীন্দ্র জাডেজা। যাঁদের উপর ভরসাটা রাখাই যায়। যাঁদের হাত ধরে ভারত ৬০০ রানের গণ্ডি পেড়তেই পারে। বাকিটা সময়ই বলবে।

শ্রীলঙ্কার হয়ে নুয়ান প্রদীপের উইকেট এক ইনিংসে এখনও পর্যন্ত ৫। এখনও ভারতের হাতে রয়েছে চার উইকেট। লাঞ্চ ব্রেকে ভারতের রান ৫০৩/৭ (১১৭ ওভারে)।
দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু
বুধবার ভারত থেমেছিল ৩৯৯ রানে। পূজারা তখন ব্যাট হাতে ভরসা দিচ্ছেন ভারতীয় ব্যাটিংকে। তার আগে অবশ্য শক্ত ভীত তৈরি করে একরাশ হতাশা নিয়ে প্যাভেলিয়নে ফিরেছেন শিখর ধবন। সঙ্গে অজিঙ্ক রাহানে ৩৯ রানে। সেই ভূমিকায় ঠিক যে ভূমিকায় শিখর ধবনের সঙ্গে ব্যাট করতে দেখা গিয়েছিল ঠিক সেরকমই দেখা গেল রাহানেকে।

টিম গেম হয়ত এটাই।
আরও খবর: ধবন-পূজারার সেঞ্চুরিতে রানের পাহাড় গড়ছে ভারত
শ্রীলঙ্কায় টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বিরাট কোহালি। যার ফল ধবনের দুরন্ত ১৯০। সঙ্গে প্রথম দিনের শেষে চেতেশ্বর পূজারার অপরাজিত ১৪৪। যেখানে প্রথম দিন শেষ করেছিল ভারতের দুই ব্যাটসম্যান সেখান থেকেই দ্বিতীয় দিন শুরু করল। আত্মবিশ্বাসটা প্রথম দিনের শেষেই বাড়িয়ে নিয়েছিল ভারতের ব্যাটিং। কারণ রানের পাহাড়ের রাস্তাটা সেদিনই তৈরি করে ফেলেছিল বিরাট কোহালি অ্যান্ড কোং।

যদিও স্বয়ং ক্যাপ্টেন কোহালির ব্যাটে রান আসেনি। তাতে কী, দলের বাকিরাই সেই দায়িত্ব নিজেদের কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন। বিরাটের সঙ্গে অভিনব মুকুন্দও ব্যর্থ।