তাসকিন আরো জোরে বল করুক এটাই আমরা চাই -ওয়ালশ!

সেরা ছন্দে থাকার সময় ১৪৫ কিমির আশেপাশে নিয়মিত বোলিং করতে পারেন বাংলাদেশের আরেক তরুন পেসার তাসকিন আহমেদ। কিন্তু গত কিছুদিনে প্রায়শই সেই গতি নেমে গেছে ১৪০ কিমির নিচে। সেই সঙ্গে নিয়ন্ত্রণও কমে গেছে খানিকটা। যার ফলে কমেছে কার্যকারিতাও।

ফিটনেস ট্রেনিং চলার এই সময়টায় পেস বোলারদের নিয়ে আলাদা করে কাজ করছেন কোচ ওয়ালশ। তাসকিনের সঙ্গে সেশন জুড়ে থাকে গতি আর লাইন-লেনথের ধারাবাহিকতা।

তিনি বলেন, তাসকিন চেষ্টা করছে আরও ধারাবাহিক হতে। তবে আমার মনে হয়েছে সে যেখানে চায়, সেখানে বল ফেলতে পারছে না। আমরা চাই সে জোরে বল করুক। কারণ তার সহজাত গতি আছে এবং সেটা ব্যবহার করতে পারে। এ নিয়ে তিনি আরও বলেন, তবে তার নিয়ন্ত্রিত আগ্রাসন থাকতে হবে। বলকে নিয়মিত সঠিক জায়গায় রাখতে হবে যেন গতিটা কাজে লাগে।

গত নিউজিল্যান্ড সফরে কামরুল ইসলাম রাব্বির বোলিংয়ে মুগ্ধ হয়েছিলেন ওয়ালশ। রাব্বি পরে ভারতের বিপক্ষে হায়দরাবাদ টেস্টে ভালো করতে না পারায় দল থেকে ছিটকে যেতে হয় তাকে।

চলতি ক্যাম্পে রাব্বির শেখার আগ্রহ দেখে খুশি ওয়ালশ। তাই জায়গা নিয়ে পেস বোলারদের প্রতিযোগিতাটাও উপভোগ করছেন বোলিং কোচ।

রাব্বি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, রাব্বির সঙ্গে আমাদের আরেকটি কাজ করতে হবে। সে ভালো করতে দারুণ আগ্রহী। ছেলেরা অনুধাবন করতে পেরেছে, দেশের বাইরে খেলা হলে ওরা আরেকটু বেশি সুযোগ পাবে। তিনি আরও বলেন, আমরা যদি ওদের মধ্যে এই প্রতিযাগিতা ধরে রাখতে পারি, একইসঙ্গে ওদের শেখাতেও পারি, তাহলে বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য সেটি হবে দারুণ!