হারের বৃত্ত থেকে বেরিয়ে এলো বায়ার্ন

এসি মিলানের কাছে ৪-০ গোলে হারের দুঃস্মৃতি কাটিয়ে স্বস্তির জয়ই পেল জার্মান জায়ান্ট বায়ার্ন মিউনিখ। ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নস কাপের (আইসিসি) সিঙ্গাপুর এডিশনে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ইংলিশ চ্যাম্পিয়ন চেলসিকে ৩-২ ব্যবধানে হারিয়ে মাঠ ছাড়ে কার্লো আনচেলত্তির শিষ্যরা।

অভিষেকটা নিজের মতো হলো না রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে চেলসিতে নাম লেখানো আলভারো মোরাতার। দ্বিতীয়ার্ধের ৬৩ মিনিটে স্প্যানিশ ফরোয়ার্ডকে বদলি হিসেবে নামান কোচ অ্যান্তোনিও কন্তে।

দুই গোলে পিছিয়ে থেকেও শেষদিকে ম্যাচ জমিয়ে তুলেছিল চেলসি। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। হার দিয়ে শুরু হলো ব্লুজদের আইসিসি মিশন। সিঙ্গাপুরের ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে হাইভোল্টেজ ম্যাচটির ৬ মিনিটের মাথায় বায়ার্নকে লিড এনে দেন ব্রাজিলিয়ান রাইটব্যাক রাফিনহা।

জোড়া গোল করে স্কোরলাইন ৩-০ করেন জার্মান তারকা থমাস মুলার (১২ ও ২৭ মিনিটে)। প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে ইন্টারের হয়ে একটি গোল পরিশোধ করেন ডিফেন্ডার মার্কোস আলোনসো। নির্ধারিত সময়ের পাঁচ মিনিট আগে ম্যাচ জমে ওঠে। বাভারিয়ানদের জালে বল পাঠান বেলজিয়ান ফরোয়ার্ড মিচি বাতশুয়াই। কিন্তু রেফারি শেষ বাঁশি বাজানোর আগে ইন্টারের সমতায় ফেরা হয়নি।

একই গ্রাউন্ডে নিজেদের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচে বায়ার্ন ও চেলসি দু’দলেরই প্রতিপক্ষ ইন্টার মিলান। সিঙ্গাপুর পর্বে এই তিনটি দলই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। যথাক্রমে ২৭ ও ২৯ জুলাই ম্যাচ দু’টি অনুষ্ঠিত হবে। খেলা শুরু বাংলাদেশ সময় বিকেল ৫টা ৩৫ মিনিটে।

এর আগে আইসিসি ইভেন্টের চীন এডিশনে দুই ম্যাচেই লজ্জা আর হতাশা সঙ্গী হয় বায়ার্নের। আর্সেনালের কাছে টাইব্রেকারে হারের পর এসি মিলানের বিপক্ষে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত হয় জার্মান পরাশক্তিরা।

চীন-সিঙ্গাপুর ছাপিয়ে আইসিসির সবচেয়ে জমজমাট আসর চলছে যুক্তরাষ্ট্রে। বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্রিদ, পিএসজি, জুভেন্টাস, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও ম্যানচেস্টার সিটির মতো ইউরোপিয়ান জায়ান্টরা সেখানে খেলছে। নতুন মৌসুমের জন্য নিজেদের ঝালিয়ে নিতে চীন ও সিঙ্গাপুরকে বেছে নেয় বায়ার্ন। শুধুমাত্র সিঙ্গাপুর পর্বে অংশ নিয়েছে চেলসি।