ইনজুরি থেকে বাঁচার উপায় বেশি শুনবো : শফিউল ইসলাম

একের পর এক সিরিজ আর বিদেশ সফরের কারণে একটু সুস্থির হয়ে ফাস্ট বোলারদের নিয়ে কাজ করার ফুরসত মিলছিল না কোর্টনি ওয়ালশের। এবার মিলল, ফিটনেস ক্যাম্পের পাশাপাশি পেসারদের নিয়েও আলাদাভাবে কাজ শুরু করলেন ওয়েষ্ট ইন্ডিজের সাবেক এই কীর্তিমান বোলার। যাঁর কাছ থেকে এই সুযোগে অনেক কিছুই শিখে নেওয়ার ইচ্ছে শফিউল ইসলাম-এর। কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি হয়ে তিনি বললেন সেসব নিয়েই

প্রশ্ন : কোর্টনি ওয়ালশের সঙ্গে এমন নিবিঢ়ভাবে কাজ করার সুযোগের প্রত্যাশায় ছিলেন নিশ্চয়ই?

শফিউল ইসলাম : তা তো অবশ্যই। এতদিন একটার পর একটা খেলা ছিল। বোলিং কোচের তাই আমাদের নিয়ে আলাদাভাবে কাজ করার সুযোগও সেভাবে হয়নি। আমরাও এরকম একটি সুযোগের অপেক্ষায় ছিলাম। যাতে তাঁর মতো কিংবদন্তির কাছ থেকে যথাসম্ভব শিখে নেওয়া যায়। এখন যেমন একটা ফিটনেস ক্যাম্প হচ্ছে। এর ফলে আগামী বছরখানেক যেমন ফিটনেস নিয়ে ক্রিকেটারদের আর চিন্তা নেই, তেমনি আশা করি এবার ওয়ালশের কাছ থেকে শেখা ব্যাপারগুলোও বহুদিন কাজে দেবে পেসারদের।

প্রশ্ন : তা বোলিং কোচ কী নিয়ে কাজ শুরু করলেন প্রথম?

শফিউল : মাত্র তো শুরু। অনেক কিছু নিয়েই কাজ হবে নিশ্চয়ই। তবে আপাতত প্রথম দুই-তিনদিন কাজ করবেন আমাদের সিম আর রিস্ট পজিশন নিয়ে।

প্রশ্ন : ওয়ালশ তো আরো অনেক কিছু নিয়েই কাজ করবেন। আপনার নিজেরও তো তাঁর কাছ থেকে অনেক কিছু জানার ও বোঝার থাকতে পারে। সে বিষয়ে একটু জানতে চাচ্ছি।

শফিউল : হ্যাঁ, আমারও অনেক কিছু জেনে নেওয়ার ইচ্ছে আছে তাঁর কাছ থেকে। বিশেষ করে খারাপ সময় থেকে বেরিয়ে আসতে কী করা দরকার, সেটি তাঁর কাছ থেকে জানতে চাই। আর দীর্ঘ ক্যারিয়ারে তিনি ইনজুরিতেও তেমন পড়েননি বলে জানি। কাজেই ইনজুরিমুক্ত থাকার উপায়ই তাঁর কাছ থেকে সবচেয়ে বেশি করে শুনতে চাইব।

প্রশ্ন : এটা খুব স্বাভাবিকও। কারণ আপনার নিজেরও ইনজুরির সঙ্গে লড়াইয়ের দীর্ঘ ইতিহাস।

শফিউল : ঠিকই বলেছেন। ইনজুরির জন্য কম তো ভুগিনি আমি। সবাই জানে যে ফিটনেস ভালো হলে ইনজুরিতে পড়ার সম্ভাবনা কম থাকে। তা আমিও তো বাংলাদেশের ক্রিকেট সার্কিটে কম দিন পার করলাম না। ফিটনেস বাড়ানোর জন্য পরিশ্রমেও ঘাটতি ছিল না কোনো। প্রচুর খেটেছি। অন্যদের মতো জিমেও কম সময় কাটাইনি। তবু কেন যে বারবারই ইনজুরিতে পড়ি, বুঝি না। হয়ত আমার কপালে এরকমই লেখা ছিল। যাই হোক এখন সামনে তাকাতে হবে। ইনজুরির সময় সুস্থির থেকে নিজেকে ফিরে পাওয়া নিয়েও শেখার আছে। নিজের বোলিংয়ের অ্যাকুরেসি বাড়ানোর দিকটি নিয়েও বোলিং কোচের সঙ্গে একটু বেশি সময় নিয়ে কাজ করতে চাই।