কৃষকের ঘর থেকে ন্যায্য মূল্যে ধান কিনে নিয়ে আসার নির্দেশ দিলেন মাশরাফি

গতবছর কৃষকরা যাতে ধানের ন্যায মূল্য পান সে কারনে সরকারীভাবে বাজার থেকে কৃষকের ধান কেনার নির্দেশ দিয়েছিলেন নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মুর্তজা। আর এবছর করোনা মহামারির কারণে কৃষককে ধান বিক্রি করতে কোথাও আসা লাগবে না, কৃষকের বাড়িতে ট্রাক নিয়ে গিয়ে ধান ক্রয় করবে জেলার খাদ্য বিভাগ, এবছর নড়াইলে এমনই অভিনব কার্যক্রম শুরু করেছেন সাংসদ মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা।

করোনা সংক্রমনের ভয়ে ধান বিক্রয় করতে যখন কিছুটা ভয়ে আছেন কৃষকরা, ঠিক সেই মুহূর্তে এমন কার্যক্রম কৃষকদের কাছে অত্যন্ত সময়োপযোগী ও কার্যকর পদ্ধতি বলে প্রশংসিত হয়েছে। কৃষকের ধান বিক্রি সহজিকরণে মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা রাজনৈতিক, সামাজিক নেতৃবৃন্দ, জেলা প্রশাসন ও কিছু কৃষকের সঙ্গে আলোচনা করে জেলা প্রশাসন ও খাদ্য অফিসকে অনুরোধ করেছেন কৃষকের বাড়িতে বাড়িতে যেয়ে ধান ক্রয় করতে। এক্ষেত্রে যাবতীয় পরিবহন খরচ সাংসদ মাশরাফী নিজেই বহন করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, ফলে জেলার খাদ্য বিভাগ নির্বিঘ্নে কৃষকদের বাড়িতে গিয়ে ধান ক্রয় করছে। আর বাজারের দামের সাথে সরকারি দামের তারতম্য না থাকায় কৃষকরা উৎসাহ নিয়ে কষ্ট করে ফলানো ধান আনন্দের সাথে বিক্রি করছে।

চলমান করোনা মহামারিতে বাড়িতে বাড়িতে গাড়ি পাঠিয়ে ধান কেনার পদ্ধতি চালু করায় স্হানীয় কৃষক কোহিনুর রহমান এমপি মাশরাফীকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, রোদে পুড়ে,বৃষ্টিতে ভিজে আমরা যে সোনার ধান ফলাই, সরাসরি আমাদের কাছ থেকে ধান কেনায় আমরা আজ লাভবান হচ্ছি। আমাদের কষ্ট আজ সার্থক হয়েছে। করোনার কারণে ধান বিক্রি ও ন্যায্য মূল্য পাওয়া নিয়ে কৃষকদের যে শঙ্কা ছিল, তাও দূর হয়েছে বলে জানান এই কৃষক।

এবিষয়ে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক শেখ মনিরুল ইসলাম জানান, মাননীয় সংসদ সদস্য মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা আমাদের ২টি ট্রাক দিয়েছেন যা নিয়ে গতকাল আমরা নড়াইল পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডে যাই। যেখান থেকে কৃষক কোহিনুর রহমান, বিন্দু রহমান ও আরতি দাসের নিকট থেকে ১ টন করে ধান ক্রয় করি এবং ওইখানেই তাদের হাতে ২৬,০০০ টাকার চেক প্রদান করি। আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে ০১৯১২৬৯৬৯৩১ এই নম্বরে বা সরাসরি খাদ্য অফিসে যোগাযোগের অনুরোধ করছি। তাহলে আমরা তার বাড়ি গিয়ে ধান কিনে আনবো।

নড়াইল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ নিজামউদ্দিন খান নীলু জানান, জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার সারাদেশে কৃষকদের পাশে দাড়াচ্ছেন। আর করোনার মধ্যেও নড়াইলে ধান কেনার এমন অভিনব কার্যক্রম চালু করায় মাশরাফীকে ধন্যবাদ জানান তিনি। করোনা পরিস্থিতিতে কৃষকের বাড়িতে গিয়ে ধান কেনার এই পদ্ধতি অনুসরণে দেশের সংশ্লিষ্ট সকলকে আহবান জানান জেলা আওয়ামী লীগের এই শীর্ষ নেতা।

এবিষয়ে জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা জানান, ধানের বর্তমান বাজার মূল্য ৯০০ টাকা থেকে ১০৫০ টাকা আর সরকার নির্ধারিত মূল্য ১০৪০ টাকা। ফলে বাড়িতে গিয়ে ১০৪০ টাকা দিয়ে ধান কেনায় কৃষকরা অনেক আনন্দিত। কৃষকদের ধান বিক্রি সহজিকরণে ও সার্বিক সহযোগিতার জন্য জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা, সংসদ সদস্য জনাব মাশরাফী বিন মোর্ত্তজাকে ধন্যবাদ জানান।