মাশরাফির কাঁধেই বাঙালির বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন

আর বেশি দেরী নেই, ৩০শে মে শুরু হবে ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় মেগা টুনামেন্ট ওয়ানডে বিশ্বকাপ । ইতিমধ্যেই প্রতিটি দল সাজিয়ে নিচ্ছে তাদের স্কোয়াড। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড এখনো দল ঘোষণা না করলেও ইঙ্গিত দিয়েছে এবারের দল হবে অভিজ্ঞতা নির্ভর। নির্বাচক এবং দলের সিনিয়রদের মতামতকেও প্রাধান্য দেয়া হবে এবারের দল নির্বাচনে।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড এর বর্তমান অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। মাশরাফি একজন যোদ্ধা। ২০১১ বিশ্বকাপে দেশের মাঠে বিশ্বকাপ না খেলতে পারার আক্ষেপ সারাজীবন পোড়াবে তাঁকে। ইনজুরির সাথে যুদ্ধ করে বারবার ফিরে এসে নিজের জাত চিনিয়েছেন। ক্রিকেট বিশ্বে বিস্ময় জাগিয়েছেন একাধিক অস্ত্রোপচার করেও ২২ গজে ফিরে এসে।

২০১৫ বিশ্বকাপ ক্রিকেটে মাশরাফির হাত ধরেই প্রথম বারের মত কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার টিকেট পেয়েছিল বাংলাদেশ। ২০১৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড এর ধারণা অনুযায়ী যে স্কোয়াড ঘোষণা হতে যাচ্ছে সেখানে ৭-৮ জন অভিজ্ঞ ক্রিকেটার থাকবেন যারা এর আগেও বিশ্বকাপ খেলেছেন। অভিজ্ঞতার ঝুলি আর ক্যাপ্টেন মাশরাফির দুর্দান্ত অধিনায়কত্ব এর মিশেলে যেকোনো কিছুই ঘটাতে পারে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশে আশরাফুল, সাকিব, তামিম, মুশফিক কিংবা রিয়াদ সকল তারকার ই হেটার্স থাকলেও একমাত্র মাশরাফি বিন মর্তুজার কোন হেটার্স নেই। কারণ, তিনি দলের প্র‍ত্যেকটি খেলোয়াড়ের সাথেই বন্ধুর মত মিশে উৎসাহিত করতে পারেন। তাই, ১৭ কোটি মানুষের একমাত্র আশার আলো মাশরাফি। মাশরাফির কাঁধেই বিশ্বকাপের স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ।