আগারে বিধ্বস্ত প্রোটিয়াদের সর্বনিম্ন রানের রেকর্ডে অজিদের বড় জয়

এস্টন আগারের দুর্দান্ত হ্যাটট্রিকে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে প্রোটিয়াদের লজ্জার মুখে ফেলে দিয়ে ১০৭ রানের বিশাল জয় তুলে নিয়েছে অজিরা।

আগে ব্যাট করে প্রোটিয়াদের ১৯৭ রানের বড় লক্ষ্য ছুড়ে দেওয়ার পর প্রোটিয়াদের শুরু থেকেই চেপে ধরে অজিরা। আগারের ঘূর্ণিতে দিশেহারা হয়ে যায় প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানরা। ইনিংসের অষ্টম ওভারে এসে হ্যাটট্রিক করে প্রোটিাদের ধ্বসে দেন আগার।

ওভারের শেষ ৩ বলে হ্যাটট্রিক করেন এই স্পিনার। চতুর্থ বলে ফাফ ডু প্লেসিসকে রিচার্ডসনের হাতে তালুবন্দি করে পঞ্চম বলে ফেহলাকুয়েকে বোল্ড করে সম্ভাবনা জাগান হ্যাটট্রিকের। শেষ বলে ডেল স্টেইনকে ফিঞ্চের তালুবন্দি করে দ্বিতীয় অস্ট্রেলিয়ান হিসেবে হ্যাটট্রিক করেন আগার।

পরবর্তী আবারো পরপর দুই বলে দুই উইকেট নেন আগার। তার কাছে পরাস্ত হয়ে প্রোটিয়ারা অলআউট হয় মাত্র ৮৯ রানেই। যা টি-টোয়েন্টিতে প্রোটিয়াদের সর্বনিম্ন রানের রেকর্ড। অন্যদিকে অজিদের বিপক্ষে ১০৭ রানের হারও প্রোটিয়াদের সবচেয়ে বড় লজ্জার হার।

অজিদের হযে সব মিলিয়ে ৪ ওভার বোলিং করে ২৪ রান দিয়ে ৫ উইকেট নেন আগার। যা অজিদের ছেলেদের টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সেরা বোলিং ফিগারের রেকর্ড।

জোহানেসবার্গে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই ডেভিড ওয়ার্নারের উইকেট হারায় সফরকারীরা। তবে এরপরই ঝড় তোলেন দুই অভিজ্ঞ অ্যারন ফিঞ্চ ও স্টিভেন স্মিথ। দুজনে ৮ ওভারে গড়েন ৮৯ রানের জুটি। তবে অর্ধশতক মিস করেন দুই ব্যাটসম্যানই৷ ফিঞ্চ ২৭ বলে ৪২ ও স্মিথ ৩২ বলে ৪৫ রান করে ফিরে যান৷

তবে এরপরের ব্যাটসম্যানদের ছোট ছোট ক্যামিওতে রানের চাকা সবসময়ই সচল ছিল অজিদের৷ ম্যাথেউ ওয়েডের ১১ বলে ১৮ এলেক্স ক্যারির ২২ বলে ২৭ ও এশটন এগারের ৯ বলে ২০ রানের ক্যামিওতে নির্ধারিত ২০ ওভারে শেষ পর্যন্ত ৬ উইকেটে ১৯৬ রান করে অস্ট্রেলিয়া।