স্পিনারদের পারফর্ম্যান্স বাজে শুনতেই ক্ষেপে উঠলেন তাইজুল

ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টিতে যেমনই টেস্ট ক্রিকেটে গত দেড় বছরে বাংলাদেশ দলের পারফর্ম্যান্স যাচ্ছেতাই। শেষ ৬ টেস্টের ৫ টিতেই ইনিংস হার। বাকি ১টি তেও আফগানিস্তানের বিপক্ষে ২২৪ রানের হার।

বাংলাদেশ দলের এমন পারফর্ম্যান্সে ব্যাটসম্যানদের দায়ীই সবচেয়ে বেশি তা বলার অপেক্ষা রাখেনা৷ তবে বোলারদেরও যে একেবারে দায়ী নেই সেটা বলা যাবেনা। গেল ৬ টেস্টে প্রতিপক্ষকে মাত্র ৩ বার অলআউট করতে পেরেছে বাংলাদেশ। তার মধ্যে আফগানিস্তানকেই ২ বার। আর পাকিস্তানকে ১ বার৷ সবমিলিয়ে শেষ ৬ টেস্টে প্রতিপক্ষের ১২০ উইকেটের মধ্যে মাত্র ৫০ উইকেট নিয়েছে বাংলাদেশ। মানে ৫০ ভাগ সাফল্যও নেই৷

বলার অপেক্ষা রাখে না, সেই শেষ ৬ টেস্টে স্পিনারদের জ্বলে উঠতে না পারাও ছিল বাংলাদেশের হারের অন্যতম কারণ। ওই ব্যর্থতাই বলে দিচ্ছে, দেশের বাইরে উইকেট অনুকুলে ছিল না। আর সব হিসেব নিকেশই বলে দেয়, বাংলাদেশের বোলারদের ভাল করতে উইকেট, কন্ডিশনের উপর নির্ভর করতে হয়। ধরা হয়, সাকিব আল হাসান থাকলে হয়ত বাইরেও সাফল্যের দেখা মিলত। সেই জায়গাটায় ঘাটতি থেকেই গেছে।

সাকিব না থাকায় যার ওপর নির্ভর করেছে স্পিন বিভাগ, সেই বাঁ-হাতি তাইজুলও জ্বলে উঠতে পারেননি। ঘুরিয়ে বললে, সাকিবের অভাব মেটানো সম্ভব হয়নি তাকে দিয়ে। সেই না পারা নিয়ে কিছু বলতে গেলে রীতিমত ক্ষেপে উঠলেন তাইজুল।

শেরে বাংলায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টের প্রস্তুতির প্রথম দিন সাংবাদিকদের কাছ থেকে এ বিষয়ে প্রশ্ন শুনে তাইজুল ঝাঁঝের সাথে জবাব দিলেন, ‘তাহলে আমরা এখন যারা স্পিনার আছি তারা ভাল স্পিনার না? সাকিব ভাইর মত না? সাকিব ভাই থাকতে যেহেতু ভাল হত, তাহলে এটাই উত্তর।’

এখন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে সাকিব থাকবেন না, আপনারা ওই জায়গা পূরনে কতটা প্রস্তুত? তাইজুলের জবাব, ‘তাহলে ওই মানের ক্রিকেটার আসতে হবে। ওই মানের স্পিনার নাই।