গত ১৯ বছরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই সর্বোচ্চ ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ

গত ত্রিদেশীয় সিরিজে জিম্বাবুয়ের সাবেক অধিনায়কের সঙ্গে সাকিব আল হাসান ও আফিফ হোসেন। ছবি : সংগৃহীত।

শুরু থেকেই বাংলাদেশের ক্রিকেটকে যথেষ্ট সাহায্য করে আসছে জিম্বাবুয়ে। প্রথমদিকে বাংলাদেশের সঙ্গে যখন কেউ খেলতে আসতে চাইত না, তখন থেকেই নিয়মিত বাংলাদেশের সঙ্গে সিরিজ খেলে আসছে জিম্বাবুয়ে। অবশ্য সেসময় বাংলাদেশ হঠাৎ হঠাৎ দুই-একটা ম্যাচে জয়ের দেখা পেত। তবুও বাংলাদেশের সঙ্গে খেলা চালিয়ে গিয়েছিল সেসময়কার শক্তিশালী দল জিম্বাবুয়ে। এতো বছর পর আজও কয়েক মাস পরপর বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে সিরিজ আয়োজিত হচ্ছে। কেননা, দীর্ঘসময় একসাথে চলতে চলতে দুই বোর্ড একে অপরের অকৃত্রিম বন্ধুতে পরিণত হয়েছে।

পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে সম্প্রতি আবারো ঢাকায় এসেছে জিম্বাবুয়ে। জিম্বাবুয়ের মতো অনেকদিন ধরে বাংলাদেশের ক্রিকেটাঙ্গনেও খরা চলছে। সেই খরা হয়তো এই সিরিজ দিয়ে কাটিয়ে ফেলতে পারবে টাইগাররা। এদিকে নিয়মিত ব্যবধানে জিম্বাবুয়ের সঙ্গে ঘনঘন সিরিজ আয়োজন করে একটি রেকর্ডও গড়ে ফেলছে বিসিবি। ২০০১ সাল থেকে গত ১৯ বছরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মোট ৭২ টি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। অন্য কোনো দলের সঙ্গে খেলা ম্যাচের সংখ্যা এর ধারেকাছেও নেই।

জিম্বাবুয়ের পর বাংলাদেশ সবচেয়ে বেশি ৩৮ টি ম্যাচ খেলেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে। এরপর পাকিস্তান ও ভারতের সাথে যথাক্রমে ৩৭ টি ও ৩৬ টি ম্যাচ খেলেছে টাইগাররা। ৩৫ টি ম্যাচ খেলেছে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে । আর অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে খেলেছে ২১ টি ম্যাচ করে।