সাইফুদ্দিনের দুর্দান্ত বোলিংয়ের পর শান্ত-জাফরের অর্ধশতকে জয় পেলো আবাহনী

63

ডিপিএলে সুপার লীগে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে সাইফুদ্দিনের দুর্দান্ত বোলিংয়ের পর শান্ত-জাফরের অর্ধশতকে প্রাইম ব্যাংককে ৬ উইকেটে হারিয়েছে মাশরাফির আবাহনী।

আগে ব্যাট করতে নেমে ৪৯.৩ ওভারে ২২৬ রানে অলআউট হয় প্রাইম ব্যাংক। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৩২ বল বাকি থাকতেই ৬ উইকেট হাতে রেখে জয়ের বন্দরে পৌছে যায় আবাহনী।

লক্ষ্য তাড়ায় আবাহনীকে ভালো সুচনা এনে দিতে ব্যর্থ হোন ওপেনার সৌম্য সরকার। ডিপিএলে এখন পর্যন্ত চোখে পড়ার মতো কোন ইনিংস খেলতে পারেননি সৌম্য। আর আজ রানের খাতা খোলার আগেই নাইম হাসানের বলে স্টাম্পিংয়ে ফাদের পড়ে ফিরে যান প্যাভিলিয়নে।

পরবর্তী জহুরুল-সাব্বির ছোট পার্টনারশিপ গড়লেও কিছুক্ষণ পরই ফিরে যান দুজনই। এরপর দলের হাল ধরেন নাজমুল হোসেন শান্ত ও জাফর। দুজনে গড়েন ১২২ রানের দারুন জুটি দুজনেই তুলে নেন অর্ধশতক। দলীয় ১৭৭ রানে জাফর ৬৪ রান করে বিদায় নিলেও শান্তর অপরাজিত ৭৭ আর শেষদিকে মিথুনের ২৪ বলে ৩৩ রানের ঝড়ে ৪৪.৪ ওভারেই ৬ উইকে হাতে রেখে জয়ের বন্দরে পৌছে যায় আবাহনী।

এর আগে টসে জিতে বোলিংয়ে নেমে আবাহনীকে দুর্দান্ত সুচনা এনে দিয়েছেন পেস অলরাউন্ডার সাইফুদ্দিন। ইনিংসের প্রথম বলেই এল বি ডব্লিউ এর ফাঁদে ফেলে প্রাইম ব্যাংক ওপেনার এনামুল হক বিজয়কে আউট করেন তিনি।

এরপর নিজের দ্বিতীয় ওভারে এসে আবারো প্রথম বলে আঘাতা হানেন সাইফুদ্দিন। আরেক ওপেনার রুবেল মিয়াকে মোসাদ্দেকের হাতে ক্যাচ বানিয়ে প্যাভিভিলয়নে পাঠান এই পেস অলরাউন্ডার। সবশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ২ ওভার বোলিং করে ৩ রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়েছেন মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন।

পরবর্তীতে মাশরাফির জোড়া আঘাত আর শেষদিকে সাইফুদ্দিনের বোলিংতোপে ২২৬ রানে অলআউট হয় প্রাইম ব্যাংক। সাইফুদ্দিন নেন ৫ উইকেট। এছাড়াও মাশরাফি নেন ২ উইকেট।