শচিনের অর্থসাহায্যে বাংলাদেশ সফরে ভারত !

290

শচিন টেন্ডুলকার। টানা ২৪ বছর দাপিয়ে বেড়িয়েছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। যদিও ব্যাট-প্যাড তুলে রেখেছেন অনেক দিন হলো। তবে এখনো ভারতীয়দের কাছে বিশেষ একজন মানুষ হিসেবেই বিবেচিত তিনি। জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের যে কোনো বিপদে এগিয়ে আসতে দেখা যায় শচিনকে। ব্যাটিং টিপস থেকে শুরু করে নানা পরামর্শ দিয়ে সাহায্য করে থাকেন তিনি।

শুধু জাতীয় দলই নয়, দেশটির জাতীয় হুইল চেয়ার ক্রিকেট দলের সদস্যদের কাছেও অনুপ্রেরণার নাম এই শচিন। তবে এই দলটার জন্য শচিন এখন শুধু অনুপ্রেরণাই নয়, রীতিমতো দেবদূতে পরিণত হয়েছেন। আর হবেনই বা না কেন? শচিন অর্থসাহায্য না করলে যে বাংলাদেশ সফরেই আসা হতো না ভারতীয় হুইল চেয়ার ক্রিকেট দলের।

অর্থের অভাবে বাংলাদেশ সফর বাতিল হয়ে যেতে বসেছিল ভারতীয় জাতীয় হুইল চেয়ার ক্রিকেট দলের। ওই সময় শচিনের কাছে অর্থসাহায্যের জন্য আবেদন জানানো হয়। সাড়া দেন শচিনও। বাংলাদেশে তিন ম্যাচের সিরিজে ২-০ জয় পেয়ে শচিনের ওই সাহায্যের যোগ্য মর্যাদাও দিয়েছে ভারতীয় হুইলচেয়ার ক্রিকেট দলের সদস্যরা।

এ নিয়ে ভারতীয় হুইলচেয়ার ক্রিকেট ইন্ডিয়ার সচিব প্রদীপ রাজ বলেন, ‘আমাদের দলের বাংলাদেশ সফরের জন্য সাড়ে ৬ লাখ টাকা দরকার ছিল। অনেক চেষ্টা করে মাত্র ২ লাখ টাকার স্পন্সর পাই। অনেক জায়গায় চেষ্টা করেও এর চেয়ে বেশি টাকা জোগাড় করতে পারিনি। আমি যখন প্যারা-অ্যাথলিট ছিলাম, তখন শচিনের ইমেল আইডি পেয়েছিলাম। আমি সাহায্য চেয়ে তাকে ইমেল করি। তিনদিনের মধ্যেই তার দফতর থেকে আমার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়।কয়েকদিনের মধ্যেই তিনি সাড়ে ৪ লাখ টাকা দেন। তিনি সাহায্য না করলে ভারতীয় হুইলচেয়ার ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফর বাতিল করতে হতো। শচিনের অর্থসাহায্যে ১৯ জনের বিমানের টিকিট কাটা সম্ভব হয়। এ ছাড়া বাকি অর্থে প্রত্যেক ক্রিকেটারকে ১০,০০০ টাকা করে দেওয়া সম্ভব হয়। বিজেপি সাংসদ তথা ভোজপুরী ছবির প্রখ্যাত অভিনেতা মনোজ প্রত্যেক ক্রিকেটারকে ১০,০০০ টাকা করে দেন। এই প্রথম ভারতের হুইলচেয়ার ক্রিকেট দলের সদস্যরা ২০,০০০ টাকা করে পেলেন।’

বাংলাদেশ সফরে তিনটি ম্যাচ খেলে ভারত। বৃষ্টিতে প্রথম ম্যাচটি ভেসে গেলেও পরের দু’টি ম্যাচই জিতে নেয় ভারত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here