মাশরাফিকে টপকে গেলেন মিরাজ

88

মেহেদী হাসান মিরাজের বোলিং তোপে ঢাকা টেস্টের প্রথম ইনিংসে প্রতিপক্ষকে নিজেদের টেস্ট ইতিহাসের সবচেয়ে কম রানে (১১১) অল-আউট করার অনন্য কীর্তি গড়েছে বাংলাদেশ। দলের অভিনব অর্জনের দিন নিজেও দেখা পেয়েছেন অভিনব এক অর্জনের।

ব্যাটিংয়ের পর বোলিংয়েও নৈপুণ্য যোগাচ্ছে আত্মবিশ্বাস
প্রথম ইনিংসে ৫৮ রান খরচায় ৭ উইকেট নেন মিরাজ।
আর তা হলো শাহাদাত হোসেন রাজীবের পর একই ইনিংসে মাশরাফি বিন মুর্তজাকে ছাড়িয়ে বাংলাদেশের টেস্ট ইতিহাসে সর্বাধিক উইকেট শিকারির তালিকায় চতুর্থ অবস্থানে আরোহণ করা।

সফরকারী উইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ নির্ধারণী ঢাকা টেস্ট শুরুর আগে শাহাদাতের সমান ৭২ উইকেট ছিল মিরাজের। জাতীয় দলের এ পেসারকে ছাপিয়ে যেতে বেশি সময় নেননি তিনি। প্রথম ইনিংসে কাইরন পাওয়েলকে বোল্ড করার মধ্য দিয়ে শাহাদাতকে উইকেটসংখ্যায় পেছনে ফেলেন তিনি।

এরপর তার সামনে হাতছানি হয়ে দাঁড়ায় মাশরাফিকে টপকানোর। যা ঢাকা টেস্টের তৃতীয় দিনে এসেই ধরা দেয় ডানহাতি এ অফ-স্পিনারের হাতে। উইন্ডিজের ইনিংসের ৩৬তম ওভারে বল করতে এসে কাঙ্ক্ষিত মাইলফলকের দেখা পান তিনি। সফরকারী দলের শন ডওরিচকে লেগ-বিফোরের ফাঁদে ফেলে আউট করার মধ্য দিয়ে মাশরাফিকে টপকে এ অর্জনে নাম লেখান তিনি।

Also Read – প্রথম ওয়ানডে দিয়েই ফিরতে চান তামিম

১৬ ওভার হাত ঘুরিয়ে মাত্র ৫৮ রান খরচায় ৭ উইকেট শিকারে বাংলাদেশি বোলারদের মধ্যে টেস্টে চতুর্থ উইকেট বনে যান মিরাজ।

উল্লেখ্য, টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশি বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি উইকেটের মালিক সাকিব আল হাসান। এ প্রতিবেদন লেখা অবধি তার ঝুঁলিতে রয়েছে ২০৫টি উইকেট। এর পরবর্তীস্থানে রয়েছেন মোহাম্মদ রফিক। ক্রিকেটকে বিদায় জানানো এ স্পিনারের সংগ্রহে রয়েছে ১০০টি উইকেট।

তার থেকে ৪ উইকেট দূরে অর্থাৎ ৯৬ উইকেট নিয়ে তালিকার তৃতীয়স্থানে অবস্থান আআরেক বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলামের। তার পরবর্তী অবস্থানেই নিজেকে তুলে এনেছেন মিরাজ। যার উইকেটসংখ্যা বর্তমানে ৮০।

টেস্ট ক্রিকেটে শীর্ষ পাঁচ উইকেট শিকারি বাংলাদেশি বোলার-

১. সাকিব আল হাসান- ৫৫ টেস্টে ২০৫ উইকেট।
২. মোহাম্মদ রফিক- ৩৩ টেস্টে ১০০ উইকেট।
৩. তাইজুল ইসলাম- ২৩ টেস্টে ৯৬ উইকেট।
৪. মেহেদী হাসান মিরাজ ১৮ টেস্টে ৮০ উইকেট।
৫. মাশরাফি মুর্তজা- ৩৬ টেস্টে ৭৮ উইকেট।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here