মানহানীর মামলায় ৩ লাখ ডলার জিতলেন গেইল

35

মানহানির মামলায় গেল বছরই জয় পেয়েছিলেন ক্রিস গেইল। এবার ক্ষতিপূরণ হিসেবে তিন লাখ অস্ট্রেলীয় ডলার জিতলেন তিনি। তাকে এ ক্ষতিপূরণ দিতে বাধ্য হচ্ছে প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম ফেয়ারফ্যাক্স।

২০১৬ সালের শুরুতে অস্ট্রেলিয়ান সংবাদমাধ্যমটি দাবি করে, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড -২০১৫ বিশ্বকাপ চলাকালে সিডনির ড্রেসিংরুমে এক নারী ম্যাসেজ থেরাপিস্টের সঙ্গে অশালীন আচরণ করেন গেইল। পরে এ নিয়ে আরও সংবাদ প্রকাশ করে সেটি। তাদের দেখাদেখি খবর ছাপায় সিডনি মর্নিং হেরাল্ড, দ্য এজ, দ্য ক্যানবেরা টাইমসসহ অস্ট্রেলিয়ার নেতৃস্থানীয় সব গণমাধ্যম ।

এতে যারপরনায় বিরক্ত হয়ে নিউ সাউথওয়েলসের সুপ্রিম কোর্টে মামলা ঠুকে দেন গেইল। ২০১৭ সালে এর শুনানি হয়। তাতে ওই নারী লিনে রাসেল অভিযোগ করেন, ২০১৫ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি ড্রেসিংরুমে তার সঙ্গে অশালীন আচরণ করেন ক্যারিবীয় ওপেনার। একপর্যায়ে চক্ষূলজ্জা বিসর্জন দিয়ে পরনের তোয়ালে খুলে গোপনাঙ্গ প্রর্দশন করেন তিনি।

তবে এমন বক্তব্যকে ভিত্তিহীন ও বানোয়াট বলে দাবি করেন গেইল। ফলে বিষয়টি খতিয়ে দেখেন আদালত। শেষ পর্যন্ত এর কোনো সত্যতা খুঁজে পাননি জুরি বোর্ড। স্বাভাবিকভাবেই মামলাটি জিতে যান টি-টোয়েন্টি কিং।
পরে আদালতে আপিল করে ফেয়ারফ্যাক্স। সোমবার সেই আপিলের রায় হয়েছে। হেরে গেছে সংবাদমাধ্যমটি। তাদের ৩ লাখ ডলার জরিমানা করেছেন বিচারকমণ্ডলী। ক্ষতিপূরণ হিসেবে সেই অর্থ পাচ্ছেন গেইল।