বিশ্বকাপ টিম প্রিভিউ: জায়ান্টদের জন্য বড় হুমকির কারন হয়ে উঠতে পারে বেলজিয়াম

86

বেলজিয়াম, রাশিয়া বিশ্বকাপে দলটিকে নিয়ে আর দশটা ছোট টিমের মতোই তেমন মাতামাতি নেই। হয়তবা,তাদের সেরকম ফুটবল ঐতিহ্য না থাকায় বিশ্বকাপে তাদের নিয়ে খুব একটা আলোচনা নেই,ফেভারিটের তকমাও জোটেনি। তবে তাতে কি? আপনি যদি ফিফা র্যাংকিংয়ের দিকে তাকান তবে দেখতে পারবেন জার্মানি ও ব্রাজিলের পরের অবস্থানটাই ধরে রেখেছে বেলজিয়াম। অর্থাৎ,ফিফা র্যাংকিংয়ে তারা আছে তিন নম্বরে। বিশ্বকাপে এই দলটি বেশ ভয়ানক হয়ে উঠতে পারে।

বেলজিয়াম দলে তারকা ফুটবলারের অভাব নাই। ইউরোপ থেকে সবার আগে তারাই বিশ্বকাপ নিশ্চিত করেছে। ১৩ বার বিশ্বকাপে খেলে বেলজিয়ামের সেরা সাফাল্য ‘৮৬ বিশ্বকাপে সেমিফাইনালে খেলা। গত ব্রাজিল বিশ্বকাপে বেলজিয়ামের দৌড় ছিল কোয়ার্টার ফাইনাল পর্যন্ত। বেলজিয়ামের কোচ রবার্তো মার্তিনেস দলটাকে বেশ ভালোভাবেই গুছিয়ে নিতে সক্ষম হয়েছেন।

রাশিয়া বিশ্বকাপেই হয়ত ইতিহাসটাকে নতুন করে লিখতে যাচ্ছে বেলজিয়াম

বেলজিয়াম একটি পরিপূর্ন দল,সব পজিশনেই বেশ ভালো মানের ফুটবলার আছেন। গোলকিপার হিসেবে থিবো কর্তোয়া এই মুহুর্তে বিশ্বসেরাদের একজন।ভিনসেন্ট কোম্পানি,অল্ডারউইয়াল্ড,ইয়ান ভারতোংয়েনদের নিয়ে রক্ষনভাগটা রীতিমত দুর্বেধ্য কোন প্রাচীর। দুই উইংয়ে ভয়ংকার দুই খেলোয়াড় আছেন বেলজিয়াম দলটিতে,চেলসির ইডেন হ্যাজার্ড ও ম্যানচেস্টার সিটির কেভিন ডি ব্রুইনা। দুইজনই দুদান্ত খেলে থাকেন এবং উভয়ই সেটপিসে গোল করায় ওস্তাদ। এছাড়া মাঝমাঠে কারাসকো,আ্যালেক্স,নাইনোগোলানরা তো আছেনই। বেলজিয়ামের সেন্ট্রার ফরোয়ার্ডে খেলবেন রোমেরু লুকাকু।

দলটির তেমন ফুটবল ইতিহাস না থাকলেও,এবারের বিশ্বকাপে যে তারা ইতিহাসটাকে নতুন করে লিখতে লিখতে পারবে না-এমন কোন কথা নেই। হয়তো রাশিয়াই হতে হচ্ছে হ্যাজার্ড-ডি ব্রুইনাদের ইতিহাস রচনার মঞ্চ।

আদনান আহমেদ,স্পোর্টসজোন টোয়েন্টিফোর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here