পাঁচ মিনিটের ব্যবধানেই বদলে যেতো খবরের শিরোনাম!

75
ছবি : সংগৃহীত।

কিছুক্ষণ! আর কিছুক্ষণের ব্যবধানেই হয়তো এই সংবাদের শিরোনামটা বদলে যেতে পারতো৷ নিউজিল্যান্ডে গিয়ে মাঠে খারাপ সময়ের পাশাপাশি এবার আরেকটি খারাপ অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হলেন তামিমরা।

আজ শুক্রবার অনুশীলন শেষে স্থানীয় নূর মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করতে গিয়েছিলেন নাঈম হাসান বাদে সবাই৷ তামিমদের বাস যখন মসজিদে পৌঁছায়, তখন স্থানীয় সময় ১ টা ৪০। মসজিদে তাঁরা ঢুকবেন, তখন তাঁরা দেখেছেন রক্তাক্ত একজন মহিলা খুঁড়িয়ে এসে হুমড়ি খেয়ে পড়ে গেছেন। তবে তখন কিছুই বুঝতে পারেননি তাঁরা। পারতেনও না হয়তো। হয়তো ঢুকেও যেতেন সেখানে। কিন্তু তখন পাশে থাকা এক গাড়ি থেকে একজন ভদ্র মহিলা চেঁচিয়ে ওঠেন, ‘ভেতরে গোলাগুলি হয়েছে। আমার গাড়িতেও গুলি লেগেছে। তোমরা ভেতরে ঢোকো না।’

পরে বাস থেকে আর বেরুননি তাঁরা। অবরুদ্ধ বাসেই কাটে রোমহর্ষক কিছু মুহূর্ত। মসজিদ থেকে কিছুক্ষণ পরপর বেরিয়ে আসেন রক্তাক্ত আহত মানুষেরা। চোখের সামনেই মারা যান অনেক ব্যক্তি। পরে তাঁরা নিজেদের নেওয়া সিদ্ধান্তের জোরে মাঠের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন। দূরত্বটা অবশ্য কম ছিলোনা। কিন্তু পুলিষ যান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছিলো। এভাবেই এক দুঃস্বপ্নময় সময় পার করেন তাঁরা।

সেই সন্ত্রাসী হামলায় ২ বাংলাদেশিসহ নিহত হন ২৭ জন। হয়তো ব্যাপারটা আরো খারাপ হতো, যদি কিনা টিম বাস আর মাত্র ৫ মিনিট আগে পৌঁছাতো। বিভীষিকাময় এই ঘটনার পর বাতিল হয়েছে ক্রাইসটার্চের শেষ টেস্ট। দ্রুতই দেশে ফিরবেন ক্রিকেটাররা। তবে যে ঘটনার সাক্ষী আজ তাঁরা হলেন, সেটা কি সহজে ভোলা সম্ভব হবে?