তামিমের অধিনায়কত্ব নিয়ে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের নাটক ফাঁস করলেন কোচ সালাউদ্দিন

151

বিপিএলের এবারের আসরে দ্বিতীয়বারের মতো শিরোপা জয়ী হয়েছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ফাইনালে দলটির আইকন তামিম বলতে গেলে একাই হারিয়েছেন গত আসরের রানার্সআপ ঢাকা ডাইনামাইটসকে। তবে দলের কোচ সালাউদ্দিন ক্রিকবাজের সঙ্গে সম্প্রতি আলাপকালে জানিয়েছেন সফল তামিমের আড়ালে থাকা আরেক তামিমের গল্প।

সালাউদ্দীন জানান, বিপিএলের এবারের আসরের কুমিল্লার অধিনায়ক হিসেবে তামিমের নাম ছিলো একদম নিশ্চিত। এমনকি টুর্নামেন্টের ছয়-সাত মাস আগে কোচ সালাউদ্দিনের সঙ্গে দলকে নিয়ে অনেক পরিকল্পনাও সেরে ফেলেছিলেন তিনি। দলের অন্যতম প্রধান তারকা স্টিভ স্মিথকে আনার পিছনেও তামিমের বড় ভূমিকা ছিলো৷

তিনি বলেন, ‘গত ৬ থেকে ৭ মাস আমি ও তামিম বিপিএলে আমাদের দলের ফরমেশন কেমন হবে সেটা নিয়ে পরিকল্পনা করেছি। কোথায় কোথায় আমাদের বেশি জোর দিতে হবে সেই পরিকল্পনা সাজিয়েছি।’


তবে হঠাৎ করেই ঘুরে গিয়েছিলো দৃশ্যপট৷ স্মিথের এজেন্টের কাছে হঠাৎই শোনেন তাঁকে নয় বরং স্মিথকে করা হচ্ছে অধিনায়ক। এরকম কথা শোনার পরপরই তামিমের ওপর রীতিমতো আকাশ ভেঙে পড়ে। এ সম্পর্কে সালাউদ্দিন বলেন, ‘স্টিভ স্মিথের সাথে যোগাযোগ করতে তামিমই আমাদের সাহায্য করেছে। স্মিথকে বাংলাদেশে আনতে ঐ সবচেয়ে বড় ভূমিকা পালন করেছে। শুরুতে আমরা সবাই জানতাম তামিমই আমাদের অধিনায়ক। আমরা সেভাবেই আমাদের পরিকল্পনা সাজাচ্ছিলাম। স্টিভ স্মিথের এজেন্টের কাছ থেকে তামিম জানতে পারে যে স্মিথকে অধিনায়ক করা হয়েছে। এটা তামিমের জন্য প্রচন্ড এক ধাক্কা ছিল। তাঁর হতাশ হবার যথেষ্ট কারণ ছিলো। একটা প্রতিযোগিতামূলক স্কোয়াড গড়তে ঘাম ঝরানোর পর হুট করে এমন হওয়াটা অস্বাভাবিক বটে।’

তবে সালাউদ্দীন তাঁর প্রিয় ছাত্র তামিমকে খুব ভালো করেই জানতেন। স্মিথের এজেন্টের কাছে খবরটা শোনার পর তামিম কষ্ট পেয়েছিলেন বটে, তবে নিজেই কোচকে বলেছিলেন স্মিথকে অধিনায়ক করার ব্যাপারে, ‘সবকিছু নাটকীয়ভাবে পরিবর্তন হবার আগ অব্দি স্মিথও জানতো তামিম কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের অধিনায়ক হবেন। এমনকি স্মিথ তামিমকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন, সে কি নেতৃত্ব দেবে? সত্যি কথা বলতে অধিনায়কত্বের জন্য ঘুম হারাম করার মতো ছেলে তামিম না। স্মিথ দেশে আসার পর তামিম আমাকে চিন্তা করতে বলেছিল স্মিথকে অধিনায়ক করার ব্যাপারে। কিন্তু টুর্নামেন্টের ঠিক আগে হুট করে স্মিথকে অধিনায়ক করার সিদ্ধান্তে গোটা ব্যাপারটা হতশ্রী হয়ে যায়। আমি এখনো বিশ্বাস করি আমরা যদি ব্যাপারটা ভালভাবে সামলাতে পারতাম তাহলে আমরা আরো গোছানো সাজঘর পেতে পারতাম।’

শেষের ম্যাচে স্বীয়রূপে জ্বলে উঠলেও প্রথমদিকে বেশ নিষ্প্রভ ছিলেন তামিম৷ এসব নাটকীয় ব্যাপারের জন্যই এমনটি হয়েছে বলে মনে করেন সালাহউদ্দিন।কিন্তু এতকিছুর মাঝেও সত্যিকারের পেশাদায়িত্ব ফুটে ওঠেছে তামিমের মধ্যে।‘আমি মনে করি টুর্নামেন্টের শুরুতে তামিমের পড়তি পারফরম্যান্সের জন্য এটি অন্যতম কারণ। এমনটা পুরো টুর্নামেন্টজুড়েই হতে পারতো। ভাগ্য ভাল তেমনটা হয়নি। এতোকিছু হবার পরেও দলের প্রতি তামিম যে উৎসর্জন দেখিয়েছেন তা তামিমের দিক থেকে বড় ত্যাগ। যা কিছু হয়েছে তা যেকারো অহং এ আঘাত করতো, কিন্তু সে এটা কাটিয়ে উঠে দলের জন্য সদয় হয়ে সত্যিকারের পেশাদারিত্ব দেখিয়েছে। যত সময় গিয়েছে সে তাঁর ভেতরের কষ্ট ভুলে সামনে এসেছে। সে মাঠের মধ্যে তাঁর পরামর্শ ইমরুলের সাথে ভাগ করেছেন।’

স্মিথ চলে যাবার পর কিন্তু অধিনায়ক হতে পারতেন তামিম। তবে সেসময় আর দলকে নেতৃত্ব দেবার ইচ্ছা প্রকাশ না করার পিছনেও কিন্তু প্রথমের ধাক্কাটাই কাজ করেছিলো বলে মনে করছেন সালাউদ্দিন। আবার এই সিদ্ধান্তকে পুরোপুরি সমর্থন করেন তিনি, ‘এটাই পরবর্তীতে তামিমের আর অধিনায়কত্বের দায়িত্ব না নেবার পেছনে একমাত্র কারণ। আমি মনে করি তামিম সঠিক সিদ্ধান্তই নিয়েছে। অধিনায়ক নির্বাচনের ক্ষেত্রে যা কিছু হয়েছে তাতে ওঁর জায়গাতে অন্য যেই থাকতো সেও এরকমই সিদ্ধান্ত নিতো। আর সেই কারণেই টুর্নামেন্টের বাকি অংশের জন্য আমরা ইমরুলকে অধিনায়ক হিসাবে পছন্দ করি।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here