জাতীয় সাঁতারে ১০ ইভেন্টে ৬ নতুন রেকর্ড

11
ছবি: সংগ্রহিত

ম্যাক্স-গ্রুপ জাতীয় সাঁতারের দ্বিতীয় দিনে ১০ ইভেন্টের মধ্যে রেকর্ড হলো ছয়টি! প্রথম দিনের মতোই এদিন পুল মাতিয়েছেন নৌবাহিনীর জুনাইনা আহমেদ ও সেনাবাহিনীর জুয়েল আহমেদ। দ্বিতীয় দিনে উজ্জ্বল ছিলেন নৌবাহিনীর আসিফ রেজাও।

ছেলেদের ৪০০ মিটার ব্যক্তিগত মিডলেতে দিনের প্রথম রেকর্ড গড়েন জুয়েল। ২০১৬ সালে নিজের গড়া ৪ মিনিট ৫২.১৫ সেকেন্ডের রেকর্ড এদিন ৪ মিনিট ৫০.০০ সেকেন্ডে নামিয়ে আনেন এ সাঁতারু। পরবর্তী সময়ে ১০০ মিটার ব্যাকস্ট্রোকে ২০০৫ সালে রুবেল রানার গড়া (১ মিনিট ১.৯৬ সেকেন্ড) রেকর্ড ভেঙে দেন কুষ্টিয়ার আমলা থেকে উঠে আসা এ সাঁতারু। এজন্য তার সময় লেগেছে ১ মিনিট ০.৭৬ সেকেন্ড। দুই দিনে তিন ইভেন্টে স্বর্ণজয়ের পথে সবগুলোয় রেকর্ড গড়েন জুয়েল।

আগের দিন দুই রেকর্ড গড়া জুনাইনা গতকাল মেয়েদের ৪০০ মিটার ব্যক্তিগত মিডলে ইভেন্টে রেকর্ড গড়ে স্বর্ণজয়ের পথে সময় নেন ৫ মিনিট ৩৭.৬১ সেকেন্ড। ২০১৬ সালে রোমানা আক্তার ৫ মিনিট ৪৭.৫৯ সেকেন্ড সময় নিয়ে আগের রেকর্ড গড়েছিলেন। পরবর্তী সময়ে ২০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলে ইভেন্টে নৌবাহিনীর তিন সতীর্থ সোনিয়া আক্তার, সোনিয়া খাতুন টুম্পা ও মাহফুজা খাতুনকে নিয়ে আরেক রেকর্ড গড়েন জুনাইনা। এজন্য তাদের সময় লাগে ৯ মিনিট ৫২.০৯ সেকেন্ড। আগের রেকর্ড ছিল ৯ মিনিট ৫৭.১০ সেকেন্ডের।
জুনাইনা ও জুয়েলের মতো এদিন দুটি রেকর্ড গড়েন আসিফ রেজা। ৫০ মিটার ফ্রিস্টাইলে ২০১৬ সালে মাহফিজুর রহমান সাগরের (২৩.৯৮ সেকেন্ড) রেকর্ড ভাঙতে নৌবাহিনীর এ সাঁতারু সময় নেন ২৩.৮৫ সেকেন্ড।

পরবর্তী সময়ে ২০০ মিটার ফ্রিস্টাইল রিলে ইভেন্টে মনিরুল ইসলাম, পলাশ চৌধুরী ও মাহমুদুন নবী নাহিদকে সঙ্গে নিয়ে আরেকটি রেকর্ড গড়েন আসিফ। এজন্য তাদের সময় লেগেছে ৮ মিনিট ১৬.৩৬ সেকেন্ড। আগের রেকর্ড ছিল ৮ মিনিট ১৯.৬১ সেকেন্ডের।
দ্বিতীয় দিন শেষে ১৩ স্বর্ণ, ১২ রুপা ও ৮ ব্রোঞ্জ পদক নিয়ে শীর্ষে আছে নৌবাহিনী। ৫ স্বর্ণ, ৫ রুপা ও ৯ ব্রোঞ্জ পদক নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে সেনাবাহিনী।

বগুড়া সুইমিং সেন্টার একটি রুপা জিতে তৃতীয় স্থানে আছে। পরের দুটি স্থানে আছে আমলা সুইমিং ক্লাব ও পাবনা জেলা ক্রীড়া সংস্থা। দুই দলের অর্জন একটি করে ব্রোঞ্জ পদক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here