গোল মিসের মহড়ায় আফগানদের বিপক্ষে আফসোস নিয়ে মাঠ ছাড়লো বাংলাদেশ

গোলবারের সামনে গোলরক্ষককে একা পেয়েও বল জালে জড়াতে ব্যর্থ হওয়ার চেয়ে ফুটবল ম্যাচে বড় আফসোস আর কী হতে পারে! আফগানিস্তানের বিপক্ষে ফিফা প্রীতি ম্যাচে সে কাজটি দুবারই করেছে রাকিব-মোরসালিনরা। কিংস অ্যারেনায় রোববার (৩ সেপ্টেম্বর) ম্যাচটি শেষ হয়েছে গোল সমতায়।

ফিফা আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে মুখোমুখি বাংলাদেশ-আফগানিস্তান। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে জামালদের তুলনায় ২২ ধাপ এগিয়ে ১৫৭তম অবস্থানে আফগানরা। ম্যাচ তাই দাপটটা তাদেরই বেশি থাকার কথা ছিল। কিন্তু শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আধিপত্য দেখিয়েছে লাল সবুজের প্রতিনিধিরা। কেবল আফসোসটা রেখে গেছে গোলের। ওয়ান অন ওয়ান পজিশন, ডি-বক্সের কাছ থেকে ফ্রি কিক কিংবা একাধিক কর্নারের সুযোগ পেয়েও ঠিকানা খুঁজে নিতে পারেনি জামাল বাহিনী।

আফসোসের শুরু ২৩তম মিনিটে। রাকিব হোসেনের উদ্দেশে ডি-বক্সে আলতো পাস বাড়িয়ে দিয়েছিলেন শেখ মোরসালিন। বল দখলে নিলেও শট নিতে ব্যর্থ হন রাকিব। বক্সে গোলরক্ষক একাই ছিলেন, পাশ থেকে দৌড়ে এসে শুইয়ে পড়ে রাকিববে ঠেকিয়ে দেন এক আফগান ডিফেন্ডার। ২৬তম মিনিটে উল্টো গোল হজম করতে বসেছিল বাংলাদেশ। ডি-বক্সের বাইরে থেকে প্রতিপক্ষের নেয়া জোরালো শট তারিক কাজী কর্নারের বিনিময়ে কোনো রকম ঠেকিয়ে দেন। দুই মিনিট পর পাল্টা আক্রমণে আরও একটি সুযোগ পেয়েছিল বাংলাদেশ। রক্ষণ পুরোপুরি ফাঁকা ছিল। কিন্তু এ যাত্রায় ডি-বক্সে ছেড়ে অনেকটা ঝুঁকি নিয়ে বল ক্লিয়ার করেন আফগান গোলরক্ষক।

৪২ মিনিটে ডি-বক্সের কিছুটা বাইরে ডান কর্নার থেকে ফ্রি কিক পেয়েছিল বাংলাদেশ। তবে সুযোগটা কাজে লাগাতে পারেননি জামাল ভূঁইয়ারা। ৪৩ মিনিটে প্রায় গোল আদায় করে নিয়েছিল আফগানিস্তান। ডি-বক্সের বাইরে থেকে ওমিদ পোপালজায়ের নেয়া জোরালো শট ডানদিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকিয়ে দেন আনিসুর রহমান জিকো। বিরতির আগে আরও একবার ডি-বক্সের কিছু বাইরে থেকে পাওয়া ফ্রি কিক থেকে গোল আদায় করতে ব্যর্থ হয় বাংলাদেশ।

বিরতির পর যে সুযোগ বাংলাদেশ মিস করেছে, সেটা বাংলার সমর্থকদের জন্য দুঃস্বপ্ন ছাড়া আর কিছুই না। ৫৫ মিনিটে পাল্টা আক্রমণে বিশ্বনাথের লম্বা পাস মাঝমাঠে দখলে নেন রাকিব। দ্রুত গতিতে ডান কর্নার ধরে বল নিয়ে আক্রমণে উঠে তিনি পাস দেন ডি-বক্সের দিকে ছুটে চলা মোরসালিনের উদ্দেশে। গোলরক্ষককে একা পেয়েও বল জালে জড়াতে ব্যর্থ হন বাংলাদেশের এই ওয়ান্ডার বয়। ৭ মিনিট পর আবারও ব্যর্থ জামাল বাহিনী। বাঁ কর্নার থেকে গোলবারের সামনে থাকা রাকিবের উদ্দেশে পাস দেন ফয়সাল আহমেদ ফাহিম। কিন্তু তিনি বল দখলে নিতেই ব্যর্থ হন। অথচ পা বাড়ালেই জালের দেখা পেয়ে যেতে পারতো বাংলাদেশ।

৭০ মিনিটে গোল হজম থেকে রক্ষা পায় জিকোরা। ডান কর্নার থেকে নাজারির ক্রস গোলবারের সামনেই পেয়ে যান মোস্তফা। তবে বিশ্বনাথের বাধায় তিনি ঠিকঠাক হেড নিতে পারেননি। পরে ডিফেন্ডারদের নৈপুণ্যে রক্ষা পায় জামাল বাহিনী। ৭৭ মিনিটে ফিনিশিংয়ের দুর্বলতায় আরও একটি গোল মিস করে আফগানিস্তান। শেষ পর্যন্ত দুদলের লড়াই শেষ হয় সমতায়।

ফিফা প্রীতি ম্যাচে আফগানদের বিপক্ষে বাংলাদেশের পরের ম্যাচ আগামী ৭ সেপ্টেম্বর।