আগুয়েরোর রেকর্ড গড়া হ্যাটট্রিকে চেলসিকে উড়িয়ে দিল সিটি

34

এক সপ্তাহও পার হয়নি। আর্সেনালের বিপক্ষে কি দারুণ একটি হ্যাটট্রিক করেছিলেন ম্যানচেস্টার সিটির আর্জেন্টাইন তারকা সের্জিও আগুয়েরো। আর তিনি যে কতটা ভয়ঙ্কর ছন্দে আছেন তা বুঝিয়ে দিলেন চেলসির বিপক্ষে আরও একটি হ্যাটট্রিক করলেন এ তারকা। আর তাতেই পুড়ে ছারখার অলব্লুজরা। ৬-০ গোলের বিশাল হারের লজ্জা নিয়ে ফিরতে হয়েছে মাউরিজিও সারির দলকে।

অবশ্য ফেবারিট তকমাটা ছিল সিটির গায়েই। তার উপর নিজেদের মাঠে খেলা। তাই বলে ছেড়ে দেওয়ার মতো দল নয় চেলসি। এ দুই দলের লড়াই মানেই বাঘে মহিষে লড়াই। কিন্তু রোববার ইত্তেহাদে পাত্তাই পেল না চেলসি। তাসের ঘরের মতো চুরমার হয়ে গেল তাদের ডিফেন্স। আগুয়েরো ছাড়াও জোরা গোল করেছেন ইংলিশ তারকা রহিম স্টার্লিং। গোল পেয়েছেন জার্মান তারকা ইলকাই গুন্দোগানও।

এদিন নিজেকে অনন্য উচ্চতায় উঠিয়ে নিলেন আগুয়েরো। ইংলিশ লিগে করেন নিজের ১১তম হ্যাটট্রিক। তাতে স্পর্শ করলেন দীর্ঘদিনের অ্যালান শিয়েরারের রেকর্ড। এতো দিন ইংলিশ লিগে সর্বোচ্চ ১১টি হ্যাটট্রিক নিয়ে শীর্ষে ছিলেন এ ইংলিশ কিংবদন্তি। তবে যেভাবে আগাচ্ছেন তাতে খুব শীগগিরই হয়তো তাকে ছাড়িয়ে যাবেন আগুয়েরো।

এদিন ম্যাচের চতুর্থ মিনিটেই এগিয়ে যায় সিটি। ফ্রিকিক থেকে ডান প্রান্তে বল পেয়ে আড়াআড়ি ক্রস করেন বেরনার্দো সিলভা। এক ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে ফাঁকায় পেয়ে যান স্টার্লিং। দারুণ এক কোনাকোনি শটে লক্ষ্যভেদ করেন এ ইংলিশ তারকা।

১৩তম মিনিটে নিজের প্রথম গোল করেন আগুয়েরো। কেভিন ডি ব্রুইনের কাছ থেকে বল পেয়ে প্রায় ২৫ গজ দূর থেকে দুর্দান্ত এক বাঁকানো শটে বল জালে জড়ান এ আর্জেন্টাইন। চার মিনিট পরই নিজের দ্বিতীয় গোল পেয়ে যান তিনি। রস বার্কলির ভুলে ছোট ডি বক্সের মধ্যে ফাঁকায় পেয়ে যান বল। আলতো টোকায় সে বল জালে জড়াতে কোন ভুল করেননি এ তারকা।

২৫ মিনিটেই চার গোলে এগিয়ে যায় সিটি। চতুর্থ গোলটিও আসে চেলসির রক্ষণভাগের ভুলে। ডিবক্সে ঠিকভাবে বল ক্লিয়ার করতে না পারলে বল পেয়ে যান ইলকাই গুন্দোগান। প্রায় ২০ গজ দূর থেকে দারুণ এক শটে লক্ষ্যভেদ করেন এ জার্মান মিডফিল্ডার। ফলে বড় লিড নিয়েই বিরতিতে যায় সিটিজেনরা।

দ্বিতীয়ার্ধেও আক্রমণের ধারা ধরে রাখে সিটি। ৫৬ মিনিটে নিজের হ্যাটট্রিক পূরণ করেন আগুয়েরো। ডিবক্সের মধ্যে স্টার্লিংকে ফাউল করেন সেসার আসপিলিকুয়েতা। ফলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। সফল এক স্পটকিকে আসরে নিজের ১৭তম গোলটি করেন এ আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। তাতে যৌথভাবে উঠে এসেছেন গোলদাতার তালিকার শীর্ষে। সমান ১৭টি গোল দিয়েছেন লিভারপুল তারকা মোহাম্মদ সালাহ।

৮০ মিনিটে সিটির কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন স্টার্লিং। ফলে ৬-০ গোলের বড় জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে সিটি। এ জয়ে ২৭ ম্যাচে ৬৫ পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে উঠে এলো দলটি। এক ম্যাচ কম খেলা লিভারপুলের পয়েন্টও ৬৫। তবে গোল ব্যবধানে পিছিয়ে আছে দলটি। ২৬ ম্যাচে চেলসির সংগ্রহ ৫০ পয়েন্ট।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here