অবসর ও নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে মুখ খুললেন তামিম

চলতি বছরের জুলাইয়ে হুট করেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তামিম ইকবাল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুরোধে সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে এলেও নানা নাটকীয়তায় ওয়ানডে বিশ্বকাপে খেলা হয়নি এই ক্রিকেটারের। সেসব ঘটনার অনেক দিন পেরোনোর পর হঠাৎ প্রধানমন্ত্রী ও বিসিবি সভাপতির সঙ্গে তামিমের আবারও সাক্ষাৎ ক্রিকেট পাড়াতে উত্তাপ ছড়াতে শুরু করেছে।

গুগল নিউজে ফলো করুন আরটিভি অনলাইন
সোমবার (২৭ নভেম্বর) দুপুরে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের সঙ্গে তার বাসায় বৈঠকে বসেছিলেন তামিম। বৈঠক শেষে পাপন গণমাধ্যমে কথা বললেও, তামিম নিশ্চুপ ছিলেন। এরই মাঝে বিকেল ৫টায় বনানীর ডিওএইচএসে নিজের বাসার সামনে বিসিবি প্রধানের সঙ্গে আলোচনা নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন ড্যাশিং এই ওপেনার।

বিসিবি সভাপতির সঙ্গে আলোচনা করেই তামিম জানালেন, আসন্ন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ দিয়ে (বিপিএল) আবারও মাঠে ফিরবেন তিনি। এরপর জাতীয় দলের ভবিষ্যৎ নিয়ে নিজের পরিকল্পনার কথা জানাবেন তিনি।

তামিম বলেন, বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন নির্বাচন নিয়ে এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন। তাই তিনি আমাকে জানুয়ারি পর্যন্ত থামতে বলেছেন। জানুয়ারি পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বলেছেন। আমি হয়তো বা বিপিএল থেকে আমার খেলাটা শুরু করব।

তিনি বলেন, আমি আবারও ক্লিয়ার করলাম যে আমি কখনো কোনো সময় এই জিনিসটা করব না বা করতে চাই না। আরেক মাস সময় নিই বা আরও কিছু সময় নিই। আমি আপনাদের বলেছি আমি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলছি। সভাপতি ও বোর্ডের সঙ্গে আমার অনেক কথা হয়েছে এসব বিষয়ে। যেহেতু ওনারা একটা কথা বলেছেন, তাই তাদের সিদ্ধান্তকে আমি সম্মান জানাই।

আমি জানুয়ারি পর্যন্ত অপেক্ষা করি আর বিপিএল খেলি তারপর দেখা যাক কি হয়। ইচ্ছাকৃতভাবে আমি জিনিসটাকে কোনোভাবেই লম্বা করব না। আমি চেয়েছি আমার উত্তরটা আজ দিতে। যেহেতু ওনাদের সঙ্গে কথা হয়েছে। বিশেষ করে উনি (পাপন) আমার একটা কথা শুনে সিদ্ধান্ত নেবেন না। সবার সঙ্গে কথা বলে সিদ্ধান্ত জানাবেন। আমিও যেহেতু সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলছি। আমিও ওপেক্ষা করছি কি হয় জানার জন্য- যোগ করেন তামিম।

আগামীকাল নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্টে মাঠে নামছে বাংলাদেশ দল। এ সময় জাতীয় দলের সতীর্থদের কথাও স্মরণ করেছেন তিনি। তামিম বলেন, কাল থেকে বাংলাদেশের টেস্ট শুরু হচ্ছে। আমি আশা করব আমার বক্তব্য বা আজকে যা বলছি এখানে এটা যেন কোনোভাবে খেলার ওপর ইম্প্যাক্ট না পড়ে।